History of UITS

University of Information Technology and Sciences (UITS), the first IT-based private University in Bangladesh was founded in 7 August 2003 as a non-profit organization. INFORMATION SCIENCE AND TECHNOLOGY SOLUTION LTD. (ISTS), a concern of PHP group headed by Alhaj Sufi Mohamed Mizanur Rahman Chowdhury is the sponsor of UITS. The guiding spirit behind the endeavor is "divine blessings, mixed with hard work, backed by good intentions, make miracles." The government was pleased to accord permission with effect from 07 August 2003 to function this University as per its Vision, Mission, Goals and Commitment to Quality Education with a view to shape a complete,effective and efficient humane power. It endeavors to remain at the cutting edge of building knowledge and skills, integrated with human values and ethical practices in Bangladesh. It is a science and technological knowledge-based center that provides marketable skills for younger generations who may be gainfully employed both national and international organizations.

News Letters

Events

ইউআইটিএস আন্তঃ বিভাগীয় ফুটবল টুর্ণামেন্ট ২০১৬ -এ চ্যাম্পিয়ন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ

২৯ অক্টোবর থেকে ০৩ নভেম্বর ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এ অনুষ্ঠিত হলো আন্তঃ বিভাগীয় ফুটবল টুর্ণামেন্ট ২০১৬। শিক্ষকদের একটি দলসহ মোট ৮টি দলের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এ টুর্ণামেন্টের ফাইনালে সিএসই অ্যান্ড আইটি কে ১-০ গোলে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হয় সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ। দলের পক্ষে একমাত্র গোলটি করেন সিভিল বিভাগের ১২ সেমিস্টারের ছাত্র মোঃ শাখায়েত হোসেন। প্লেয়ার অব দ্যা টুর্ণামেন্ট হন সিএসই অ্যান্ড আইটি বিভাগের আল কামরান এবং ৩ গোল দিয়ে টুর্ণামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতার কৃতিত্ব অর্জন করেন শিক্ষক দলের ফার্মেসী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও সহকারী অধ্যাপক মোঃ মোফাজ্জল হোসেন।

ইউআইটিএস এ “নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন” শীর্ষক সেমিনার দেশের প্রত্যেকটি নারীকেই উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে উঠতে হবে

বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত প্রথম তথ্য ও প্রযুক্তি ভিত্তিক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর বিজনেস স্কুলের উদ্যোগে “নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন” শীর্ষক সেমিনার আজ ১৬ নভেম্বর ২০১৬ তারিখ বুধবার সকাল ০৯:৩০ টায় বিশ্ববিদ্যালয় এর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেমিনারে প্রধান অতিথি ইউআইটিএস এর প্রতিষ্ঠাতা, বোর্ড অব ট্রাস্টিজ ও পিএইচপি ফ্যামিলির মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সুফি মুহাম্মদ মিজানুর রহমান শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, এ দেশের প্রত্যেকটি নারীকেই উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। ব্যবসা তথা যে কোন মহৎ উদ্যোগে পুরুষ ও নারীর মাঝে কোন পার্থক্য নেই- এ সত্য আজ সুপ্রতিষ্ঠিত। তিনি আরও বলেন, প্রত্যেক মানুষ তার প্রয়োজনের অতিরিক্ত কতটুকু কাজ করছে, তার ওপর নির্ভর করে তার জীবনের সফলতা। জীবনে সফল হতে হলে একই সঙ্গে প্রয়োজন ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি, আত্মবিশ্বাস, নিয়মানুবর্তিতা, কঠোর পরিশ্রম করার মানসিকতা ও সততা। আর একজন মানুষ যখন এসকল গুণাবলী অর্জন করে তা পরিপূর্ণরূপে বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হন, তখনই তার জীবনে উন্নতি ঘটে এবং তার অভিষ্ঠ লক্ষে সে পৌঁছে যায়। আর এ অভিষ্ট লক্ষে পৌঁছে দিতে এবং সুদক্ষ ও সফল মানুষ করে গড়ে তুলতে ইউআইটিএস অল্প খরচে দেশের সন্তানদের শিক্ষা দান করে আসছে দীর্ঘ এক যুগেরও বেশী সময় ধরে। তিনি উল্লেখ করেন যে, ইতিহাসে অন্যতম সফল নারী উদ্যোক্তা ছিলেন হযরত খাদিজাতুল কুবরা (রা:)। তিনি আরবের একজন শ্রেষ্ঠ সফল ব্যবসায়ী ছিলেন।
বিশেষ অতিথি ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি: এর এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক সৈয়দ আহসানুল আলম পারভেজ বলেন, সুশাসনের ফলে যে কোন ধরনের প্রশাসনের প্রতিটি ক্ষেত্রে নানাবিধ সুফল পাওয়া যায় এবং কাজের প্রতিটি পর্যায়ে গতিশীলতা সৃষ্টি হয়। স্বচ্ছতা, দায়িত্ববোধ, জবাবদিহিতা, অংশগ্রহন এবং সংবেদনশীলতার ক্ষেত্রেও লক্ষনীয় উন্নতি সাধিত হয়। উল্লেখযোগ্য যে, এই পাঁচটি বৈশিষ্ট্য সুশাসনের মূল স্তম্ভ হিসেবে বিবেচিত হয়।                          
সেমিনারের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশের স্বনামধন্য অভিনেত্রী, নারী উদ্যোক্তা, মানবাধিকার কর্মী ও সাবেক সংসদ সদস্য সারাহ বেগম কবরী। তিনি বলেন, বর্তমানে অগ্রসরমান যে সমাজ তার উন্নয়নের সম অংশিদার নারীরা। সারা পৃথিবীর মত বাংলাদেশেও নারী উদ্যোক্তাদের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশ্বমাত্রিক বিবেচনায় শতকরা ৩৪ জন নারী উদ্যোক্তা আজ ব্যবসা ক্ষেত্রে সুপ্রতিষ্ঠিত। বাংলাদেশের নারীরাও সমানতালে এগিয়ে চলেছে।
নারীরা পরিবারকে এগিয়ে নেয়ার সাথেসাথে সমাজের উন্নয়নে সক্রিয়ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। ফলে বাংলাদেশে নারী উদ্যোক্তাদের সংখ্যা ও গুনগতমান উভয়ই বৃদ্ধি পাচ্ছে।
এছাড়াও প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ফর সফ্টওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিস (বেসিস) এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ইউওয়াই সিস্টেম্স লিমিটেড এর সিইও ফারহানা এ রহমান, কারিগর এর ম্যানেজিং পার্টনার তানিয়া ওয়াহাব এবং ইনটেরিয়র ডিজাইনার ও নারী উদ্যোক্তা দুর্দানা হোসেন এবং ফ্যাশন ডিজাইনিং উদ্যোক্তা ও রিলাজ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মানতাসা আহমেদ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান। সভাপতির বক্তব্যে ড. মোহাম্মদ সোলায়মান বলেন, ইউআইটিএস দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে প্রথমবারের মত নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন বিষয়ক একটি সেমিনারের আয়োজন করলো। তিনি আরও বলেন যে, ইউআইটিএস বারিধারাস্থ তার একটিইমাত্র ক্যাম্পাসে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে এবং দেশের উচ্চ শিক্ষা লাভকারি শিক্ষার্থীদের যুগোপযোগী শিক্ষা দিয়ে যাচ্ছে। তিনি নারী উদ্যোক্তাদের উত্তরোত্তর সফলতা ও সমৃদ্ধি কামনা করেন।
অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন বিজনেস স্কুলের ডীন ও ইউআইটিএস-এর পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক আ.ন.ম. শরীফ। অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিত সকল আমন্ত্রিত অতিথিদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে সমাপনী বক্তব্য দেন বিজনেস বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ফারহানা রহমান। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান, সকল ডীন, বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীগন।
ছবির ক্যাপশান: ইউআইটিএস-এ “নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন” শীর্ষক সেমিনারে বক্তব্য রাখছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজ ও পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সুফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, পাশে উপবিষ্ট অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।

ইউআইটিএস এ “নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন” শীর্ষক সেমিনার

বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত প্রথম তথ্য ও প্রযুক্তি ভিত্তিক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর বিজনেস স্কুলের উদ্যোগে “নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন” শীর্ষক একটি সেমিনার আগামী ১৬ নভেম্বর ২০১৬ তারিখ বুধবার সকাল ০৯:৩০ টায় বিশ্ববিদ্যালয় এর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে। সেমিনারের প্রধান উদ্দেশ্য বিজনেস বিভাগের শিক্ষার্থীদেরকে বিশেষত ছাত্রীদেরকে উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে উঠতে উৎসাহিত করা। এই সেমিনারের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সচেতনতা সৃষ্টি করে সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে সাবলম্বী করা এবং তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে বর্তমান বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বিভিন্ন সেক্টরে নারীদের উজ্জল দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করা এবং বাংলাদেশের সাম্প্রতিক সফল উদ্যোক্তাদের সাফল্যের গল্প শুনিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদেরকে অনুপ্রাণিত করা।

সেমিনারে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করবেন ইউআইটিএস এর প্রতিষ্ঠাতা, বোর্ড অব ট্রাস্টিজ ও পিএইচপি ফ্যামিলির মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সুফি মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি: এর এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক সৈয়দ আহসানুল আলম পারভেজ। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বাংলাদেশের স্বনামধন্য অভিনেত্রী, নারী উদ্যোক্তা, মানবাধিকার কর্মী ও  সাবেক সংসদ সদস্য সারাহ বেগম কবরী।

এছাড়াও প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ফর সফ্টওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিস (বেসিস) এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ইউওয়াই সিস্টেম্স লিমিটেড এর সিইও ফারহানা এ রহমান, কারিগর এর ম্যানেজিং পার্টনার তানিয়া ওয়াহাব এবং ইনটেরিয়র ডিজাইনার ও নারী উদ্যোক্তা দুর্দানা হোসেন এবং ফ্যাশন ডিজাইনিং উদ্যোক্তা ও রিলাজ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মানতাসা আহমেদ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান।

ইউআইটিএস-এর ইইই বিভাগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হলো ন্যানো টেকনোলজি বিষয়ে বিশেষ সায়েন্টিফিক সেমিনার।

আজ ১২ নভেম্বর ২০১৬ খ্রি. শনিবার দুপুর ১২টায় ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর বারিধারাস্থ ক্যাম্পাসে ইইই বিভাগের উদ্যোগে ন্যানো টেকনোলজি বিষয়ে একটি বিশেষ সায়েন্টিফিক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারের প্রধান আলোচক স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এর ডীন এবং ইইই বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ড. মো: মিজানুর রহমান “প্রস্পেক্টস অব ন্যানো টেকনোলজি” বিষয়ে এবং সহকারী অধ্যাপক ও জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচ. ডি গবেষক পলাশ চন্দ্র কর্মকার “এফেক্ট অব হিট ট্রিটমেন্ট অন দ্যা মেগনেটিক প্রপারটিজ অব এনডি-এফই-বি বেস্ড এক্সচেঞ্জ স্প্রিং ন্যানো কম্পোজিটস উইথ দ্যা ভেরিয়েশন অব হায়ার এনিসোট্রপিক টিবি” বিষয়ে বিভিন্ন ভিডিও ক্লিপ ও সøাইড শো এর মাধ্যমে তাদের আলোচনা উপস্থাপন করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস এর বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক মুহাম্মদ ফরিদউদ্দিন খান ও  স্কুল অব লিবারাল আর্টস অ্যান্ড সোস্যাল সায়েন্স এর ডীন ড. আরিফাতুল কিবরিয়া। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রীরা এ অনুষ্ঠানে অংশ নেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো: মাহমুদুল হাসান।

Obituary

Mahmudul Hasan Moon, ex-student of UITS bearing ID 1050347 died last night of a heart attack. He was from  Pabna. We are deeply saddened by his untimely death! May Allah bless his soul. We express our deepest condolences to his bereaved family.

ইউআইটিএস এর শরৎকালীন নবীনবরণ ২০১৬ অনুষ্ঠানে মো: আলী হোসেন চৌধুরী “ইউআইটিএস বিভিন্ন পেশাদারী শিক্ষায় হাজারও শিক্ষার্থীকে স্বল্প খরচে আলোকিত মানুষ হিসেবে তৈরী করছে।”

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর উৎসব মুখর নবীনবরণ অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়টির বোর্ড অব ট্রাস্টিজ এর সম্মানিত সদস্য ও পিএইচপি ফ্যামিলির ফাইন্যান্স ও অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ডাইরেক্টর মোহম্মদ আলী হোসেন চৌধুরী আজ দুপুরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেছেন, বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ইউআইটিএস বিভিন্ন পেশাদারী শিক্ষায় হাজার হাজার শিক্ষার্থীকে এ পর্যন্ত জাতির উন্নয়নের সৈনিক হিসেবে তৈরী করার বিশেষ অবদান রাখতে সক্ষম হয়েছে।
শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, প্রত্যেক মানুষ তার প্রয়োজনের অতিরিক্ত কতটুকু কাজ করছে, তার ওপর নির্ভর করে তার জীবনের সফলতা। জীবনে সফল হতে হলে একই সঙ্গে প্রয়োজন ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি, আত্মবিশ্বাস, নিয়মানুবর্তিতা, কঠোর পরিশ্রম করার মানসিকতা ও সততা। আর একজন মানুষ যখন এসকল গুণাবলী অর্জন করে তা পরিপূর্ণরূপে বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হন, তখনই তার জীবনে উন্নতি ঘটে, তার জীবন হয় উন্নত ও মহৎ।
তিনি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও পিএইচপি ফ্যামিলির মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সুফি মুহাম্মদ মিজানুর রহমান এর এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পিছনের ইতিহাস তুলে ধরে বলেন, স্বল্প খরচে তিনি এদেশের সকল শিক্ষার্থীকে আলোর পথ দেখানোর স্বপ্ন দেখেন। তিনি বলেন, ইউআইটিএস সব সময় ইতিবাচক দৃষ্টি ভঙ্গিতে বিশ্বাসী। শিক্ষাঙ্গনের সন্ত্রাস আমাদের শিক্ষা ব্যাবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। ইদানিং কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জঙ্গি ও সস্ত্রাসী তৎপরতা আমাদেরকে বিচলিত করে তুলেছে। যে কোন মুল্যে এই অপতৎপরতার প্রতিরোধ করে সুশিক্ষার মাধ্যমে  শিক্ষার্থীদের সঠিক পথে পরিচালিত করতে হবে। তিনি আরও বলেন, বেসরকারী  বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর মধ্যে ইউআইটিএস সর্বক্ষেত্রে অগ্রগামী। এই বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের সফলতার জন্য  ইতিবাচক দৃষ্টি ভঙ্গি, আত্মবিশ্বাস,  নিয়মানুবর্তিতা, কঠোর পরিশ্রম করার মানসিকতা ও সততা শিক্ষা দেয়।
আজ ঢাকার বারিধারাস্থ ইউআইটিএস-এর ক্যাম্পাসে উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ সোলায়মান-এর সভাপতিত্বে নবীন বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বোর্ড অব ট্রাস্টিজ, ইউআইটিএস এর সম্মানিত সদস্য ও পিএইচপি ফ্যামিলির ফাইন্যান্স ও অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ডাইরেক্টর মোহম্মদ আলী হোসেন চৌধুরী এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান এবং পিএইচপি ফ্যামিলির মানব সম্পদ ও প্রশাসনের নির্বাহী পরিচালক আহমদ সিপারউদ্দীন।
নবাগত ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইউআইটিএস-এর কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী।
অনুষ্ঠান শেষে ইউআইটিএস-এর স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এর ডীন ড. মো: মিজানুর রহমান উপস্থিত সকল আমন্ত্রিত অতিথিদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন দেশবরেণ্য শিক্ষাবিদ ও সমাজের বিভিন্ন স্তরের সম্মনিত ব্যক্তিবর্গ এবং ইউআইটিএস-এর ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মো: কামরুল হাসান, সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও নবীন শিক্ষার্থীরা। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ইউআইটিএস-এর স্কুল অব লিবারাল আর্টস অ্যান্ড সোস্যাল সায়েন্স এর ডীন ড. আরিফাতুল কিবরিয়া।

ইউআইটিএস এ শরৎকালীন নবীনবরণ ২০১৬

বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত প্রথম তথ্য ও প্রযুক্তি ভিত্তিক বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর শরৎকালীন নবীনবরণ ২০১৬ আগামী ৫ নভেম্বর ২০১৬ তারিখ শনিবার সকাল ১১:০০ টায় বিশ্ববিদ্যালয় এর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ নবীনবরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করবেন ইউআইটিএস এর বোর্ড অব ট্রাস্টিজ এবং পিএইচপি ফ্যামিলির সম্মানিত চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ইউআইটিএস এর বোর্ড অব ট্রাস্টিজ এর সম্মানিত সদস্য ও পিএইচপি ফ্যামিলির পরিচালক জনাব মো: আলী হোসেন চৌধুরী এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর অধ্যাপক ড. এম কায়কোবাদ। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত থাকবেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান এবং পিএইচপি ফ্যামিলির মানব সম্পদ ও প্রশাসনের নির্বাহী পরিচালক আহমদ সিপারউদ্দীন।

 

ইউআইটিএস-এ ইংরেজী বিভাগের উদ্যোগে উদযাপিত হলো শরৎকালীন নবীনবরণ ২০১৬

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)- এর বারিধারাস্থ ক্যাম্পাসে ইংরেজী বিভাগের উদ্যোগে নবীনবরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ এবং শিক্ষার্থীদেরকে বিশেষত: নবাগত শিক্ষার্থীদের স্বাগত ও অভিনন্দন জানান বিভাগীয় প্রধান ও সহকারী অধ্যাপিকা সৈয়দা আফসানা ফেরদৌসী। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ইউআইটিএস-এর মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সোলায়মান নতুন ছাত্র-ছাত্রীদেরকে ইংরেজী বিভাগে ভর্তির হওয়ার জন্য অভিনন্দন জানান। তিনি শিক্ষার্থীদেরকে ইউআইটিএস-এর বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা যেমন: বৃত্তির সুযোগ গ্রহণের জন্য পরামর্শ দেন। অনুষ্ঠানে কেক কেটে আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ এবং ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে বিতরন করা হয়। আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে অন্যতম ইউআইটিএস এর কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী, রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান এবং আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান স্যামুয়েল কায়জার এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই নবীনবরণ অনুষ্ঠানটি শেষ হয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইংরেজী বিভাগের সহকারী অধ্যাপিকা মোমেনা খাতুন মিমি।

 

ইউআইটিএস ফার্মেসি ক্লাবের উদ্যোগে ব্লাড গ্রুপ ও ব্লাড প্রেসার ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত

 

জনসচেতনতা গড়ে তোলা ও রক্তদানে উৎসাহিত করার উদ্দেশ্যে ২৪ অক্টোবর ২০১৬, সোমবার সকাল ১০ঃ০০ টায় ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর ফার্মেসি ক্লাবের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হল  ব্লাড গ্রুপ ও ব্লাড প্রেসার ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠান। ২৪ থেকে ২৬ অক্টোবর তিন দিনব্যাপি অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ফার্মেসির বিভাগীয় প্রধান মো: মোফাজ্জল হোসেন। ইউআইটিএস এর সকল বিভাগের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ স্বতস্ফুর্তভাবে তাদের ব্লাড গ্রুপ ও ব্লাড প্রেসার পরীক্ষা করান। অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন ফার্মেসি বিভাগের প্রভাষক মোঃ মেহেদী হাসান।

 

ইউআইটিএস-এ ১৩তম অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল সভা অনুষ্ঠিত

“বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস” ও “বাংলা ভাষা” নামক দু’টি কোর্স চালু।

২২ অক্টোবর ২০১৬ শনিবার ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এ অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের ১৩তম সভা ২০১৬ উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান এর সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফারেন্স রুমে বিকেল ৪ টায় অনুষ্ঠিত হয়। সভায় “বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস” ও “বাংলা ভাষা” নামক দু’টি কোর্স চালু করন, “বাংলাদেশ স্টাডিজ” সিলেবাসের পুর্নবিন্যাস এবং শরৎকালীন সেমিস্টার থেকে গ্রাজুয়েট ও আন্ডার গ্রাজুয়েট উভয় ক্ষেত্রে ইউজিসি নির্দেশিত ইউনিফর্ম গ্রেডিং স্কিম (uniform grading scheme) সম্পূর্ণরূপে চালু করাসহ আরো বেশকিছু বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। উক্ত সভায় অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান, উপদেষ্টা, ইউআইটিএস ট্রাস্টি বোর্ড, অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী, ট্রেজারার, ইউআইটিএস, আহমদ সিপার উদ্দিন, নির্বাহী পরিচালক (মানব সম্পদ ও প্রশাসন), পিএইচপি পরিবার, মো: মাহফুজুর রহমান ভূঁইয়া, নির্বাহী পরিচালক, পিএইচপি পরিবার, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান, সদস্য সচিব ও অন্যান্য সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ইউআইটিএস-এ ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের উদ্যোগে উদযাপিত হলো শরৎকালীন নবীনবরণ ২০১৬

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)- এর বারিধারাস্থ ক্যাম্পাসে ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের উদ্যোগে নবীনবরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানের আয়োজনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন বিভাগীয় শিক্ষিকা প্রভাষক সুমি সরকার। আর এ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ এবং শিক্ষার্থীদেরকে বিশেষত: নবাগত শিক্ষার্থীদের স্বাগত ও অভিনন্দন জানান বিভাগীয় প্রধান ও সহকারী অধ্যাপিকা ফারহানা রহমান। সার্বিকভাবে অনুষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষক ছিলেন ব্যবসা প্রশাসন অনুষদের ডিন অধ্যাপক আ ন ম শরীফ। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ইউআইটিএস-এর উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সোলায়মান নতুন ছাত্র-ছাত্রীদেরকে ইউআইটিএস-এ ভর্তির জন্য অভিনন্দন জানান। তিনি ব্যবসা প্রশাসন বিভাগের শিক্ষকদের গুণগত মানের উচ্চ প্রশংসা করেন এবং ছাত্র-ছাত্রীদেরকে শিক্ষার মাধ্যমে এ সকল শিক্ষকদের উচ্চ মানের সুযোগ নেয়ার জন্য পরামর্শ দেন। একই সঙ্গে তিনি শিক্ষার্থীদেরকে ইউআইটিএস-এর বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা যেমন: বৃত্তির সুযোগ গ্রহণের জন্য পরামর্শ দেন। পরিশেষে তিনি ছাত্র-ছাত্রীদেরকে অধ্যয়নের সাথে সাথে কো-কারিকুলার কর্মসূচিতে অংশগ্রহণের জন্যও পরামর্শ দেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ইউআইটিএস-এর কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী ছাত্র-ছাত্রীদেরকে এক আশাব্যঞ্জক ভবিষ্যতের ইঙ্গিত প্রদান করেন। যাতে তারা তাদের শিক্ষা জীবনকে জ্ঞান ও সাফল্যের জন্য নিবেদিত করতে উৎসাহিত হয়। এ শিক্ষার উপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, ব্যবসা প্রশাসন হচ্ছে সকল বিজ্ঞানের রাণী। একই সঙ্গে তিনি ছাত্র-ছাত্রীদেরকে সাফল্যের জন্য তাদের প্রতিভা বিকাশের পরামর্শ দেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে পিএইচপি ফ্যামিলির মানব সম্পদ বিভাগ ও প্রশাসনের নির্বাহী পরিচালক আহমদ সেপারউদ্দিন মানব সম্পদ উন্নয়নের জন্য জ্ঞান, দক্ষতা ও আশাব্যঞ্জক দৃষ্টিভঙ্গির উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি ছাত্র-ছাত্রীদেরকে সমস্যা নিয়ে বিব্রত না হয়ে সমস্যা সমাধানের জন্য পরামর্শ প্রদান করেন। একই সঙ্গে তিনি ছাত্র-ছাত্রীদেরকে মূল্যবোধ এবং আধ্যাত্মিকতা অর্জনে উৎসাহ প্রদান করেন এবং বলেন যে, তাদেরকে অবশ্যই সর্বদা পিতা-মাতাকে সম্মান করতে হবে। পরিশেষে তিনি ছাত্র-ছাত্রীদেরকে বই পড়া এবং প্রতিটি পরিবারে গ্রন্থাগার গড়ে তোলার পরামর্শ দেন। অনুষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষক অধ্যাপক আ ন ম শরীফ ছাত্র-ছাত্রীদেরকে ইউআইটিএস-এর বার্তা সমাজের সর্বত্র ছড়িয়ে দেয়ার জন্য পরামর্শ প্রদান করেন। ইউআইটিএস রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান ছাত্র-ছাত্রীদেরকে জ্ঞান অর্জনের পরামর্শ দেন কেননা জ্ঞানই হচ্ছে আল্লাহর কাছে পৌঁছার পথ। একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই নবীনবরণ অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।

ইউআইটিএস-এ ‘জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে শিক্ষার ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভা

৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬ খ্রি. বিকাল ৩টায় ‘জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে শিক্ষার ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এ। বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক  ড. এস. আর. হিলালী এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সোলায়মান এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আইন বিভাগের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান ভূঁইয়া, স্কুল অব লিবারাল আর্টস অ্যান্ড সোস্যাল সয়েন্স এর ডিন ড. আরিফাতুল কিবরিয়া, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান, প্রক্টর পলাশ চন্দ্র কর্মকার, রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান, সকল বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষকমন্ডলী, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীরা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সোলায়মান বলেন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে সক্রীয় সচেতনতা সৃষ্টির পাশাপাশি ইউআইটিএস কে এগিয়ে নিয়ে যেতে শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীদেরকে একসাথে কাজ করতে হবে।

বিশেষ অতিথি অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান জঙ্গিবাদের উত্থানে অজ্ঞতা ও আংশিক শিক্ষাকে দায়ী করেন।

অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান ভূঁইয়া বলেন, প্রকৃত শিক্ষার আলোয় আমাদেরকে আলোকিত হতে হবে। আর প্রকৃত শিক্ষা হল সেই শিক্ষা যে শিক্ষা অজ্ঞতা দূর করে।

সমাপনী বক্তব্যে সভাপতি অধ্যাপক  ড. এস. আর. হিলালী বলেন, বাহ্যিক শিক্ষা নয় আত্মিক শিক্ষাই জাতিকে মুক্তি দিতে পারে।

আলোচনা সভায় যে কোন ধরনের অনাকাক্সিক্ষত ও অনভিপ্রেত হঠকারী ঘটনার মাধ্যমে যাতে জাতীয় স্থিতিশীলতা বিনষ্ট করার জন্য কোন মহল আর অপপ্রয়াস চালাতে না পারে সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদেরকে সে বিষয়ে সচেতন থাকার জন্য আহবান জানান আলোচকবৃন্দ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এর ডিন ড. মো. মিজানুর রহমান।

জাতীয় শোক দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ইউআইটিএস-এর শ্রদ্ধাঞ্জলি

স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবার বর্গ এবং শোকাবহ ১৫ আগস্টের শহীদগনের ৪১তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস. আর হিলালী। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান, সিনিয়র অ্যাসিসটেন্ট ডাইরেক্টর মীর ফরহাদ ফয়সাল, সহকারী রেজিস্ট্রার কে এম শাকিল হোসেন, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ইউআইটিএস এ আলোচনা ও মিলাদ মাহফিল

 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবার বর্গ এবং শোকাবহ ১৫ আগস্টের শহীদগনের ৪১তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে ১৩ আগস্ট ২০১৬ শনিবার বাদ আসর ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর মিলনায়তনে তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় বিশেষ আলোচনা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ড. এস. আর. হিলালী এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক আ. ন. ম. শরীফ, রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান, প্রক্টর পলাশ চন্দ্র কর্মকার, স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এর ডিন ড. মো: মিজানুর রহমান, সিএসই বিভাগের বিভাগীয় প্রধান রায়হান উদ্দিন, সকল শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইউআইটিএস এর ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান।

ইউআইটিএস-এর ১৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী বর্নাঢ্যভাবে অনুষ্ঠিত শিক্ষাঙ্গনে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে দৃঢ় অঙ্গিকার ব্যক্ত।

শিক্ষাঙ্গনে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে দৃঢ় অঙ্গিকার ব্যক্ত করে আজ ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে। আজ ৭ আগস্ট ২০১৬ রবিবার দিনব্যাপী বর্নাঢ্য আয়োজনে আনন্দ-উল্লাসের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের প্রথম তথ্য প্রযুক্তি ভিত্তিক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউআইটিএস-এর ১৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্যাপিত হলো। এ উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের বারিধারা ক্যাম্পাস মিলনায়তনে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটা ও অন্যান্য অনুষ্ঠানের পাশাপাশি বিকাল ৩টায় “জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে শিক্ষার ভূমিকা” শীর্ষক এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। কোন শিক্ষাঙ্গনে যাতে শিক্ষার পরিবেশ বিনষ্টকারী কোন কর্মকান্ড সংগঠিত না হয় এ বিষয়ে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বনের জন্য আলোচনায় গুরুত¦ আরোপ করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, শিক্ষাঙ্গনের সন্ত্রাস আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে। ইদানিং কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জঙ্গি ও সন্ত্রাসী তৎপরতা আমাদেরকে বিচলিত করে তুলেছে। যে কোন মূল্যে এই অপতৎপরতার প্রতিরোধ করে সুশিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সঠিক পথে পরিচালিত করতে হবে।

বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর ইলেকট্রিক্যাল এ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের সম্মানিয় ডিন প্রখ্যাত কম্পিউটার বিজ্ঞানী অধ্যাপক  ড. এম কায়কোবাদ।

অনুষ্ঠানের প্রধান আলোচক ইউআইটিএস এর প্রতিষ্ঠাতা এবং বোর্ড অব ট্রাস্টিজ ও পিএইচপি পরিবারের মাননীয় চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ্ব সুফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ইউআইটিএস বিভিন্ন পেশাদারী শিক্ষায় হাজার হাজার শিক্ষার্থীকে এ পর্যন্ত জাতির উন্নয়নের সৈনিক হিসেবে তৈরী করার বিশেষ অবদান রাখতে সক্ষম হয়েছে।

শিক্ষার্থীদের উদ্যেশে তিনি বলেন, প্রত্যেক মানুষ তার প্রয়োজনের অতিরিক্ত কতটুকু কাজ করছে, তার ওপর নির্ভর করে তার জীবনের সফলতা। জীবনে সফল হতে হলে একই সঙ্গে প্রয়োজন ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি, আত্মবিশ্বাস, নিয়মানুবর্তিতা, কঠোর পরিশ্রম করার মানসিকতা ও সততা। আর একজন মানুষ যখন এসকল গুণাবলী অর্জন করে তা পরিপূর্ণরূপে বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হন, তখনই তার জীবনে উন্নতি ঘটে, তার জীবন হয় উন্নত ও মহৎ। তিনি আরও বলেন, যে জাতি যত বেশি শিক্ষিত সে জাতি তত বেশি উন্নত। শিক্ষার সাথে দীক্ষা, বিদ্যার সাথে বিনয়, কর্মের সাথে নিষ্ঠা, জীবনের সাথে মুল্যবোধ, মানব প্রেম এবং দেশ প্রেমের সংমিশ্রন ঘটাতে না পারলে প্রকৃত পক্ষে সে শিক্ষা আসল শিক্ষা নয়। মানুষের মত এত মহীয়ান, এত শক্তিমান আর কোন সৃষ্টি এ বিশ্ব ভ্রমান্ডে নেই। তাই মানব সন্তানদের মধ্যে লুকানো অমৃত শক্তিকে জাগ্রত করে, মানবীয় গুণাবলীতে বলীয়ান মানব সন্তানদেরকে নিজের শক্তিতে দাড়িয়ে অভিষ্ঠ লক্ষে পৌছানোর মানসে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক মন্ডলির সহায়তায় আমরা আলোকিত মানুষ তৈরী করে চলেছি। তিনি আরো বলেন, আমার অন্তরে এ দেশের সন্তানদের শিক্ষার জন্য প্রচন্ড আগ্রহ আছে। এ কারনে আমি দেশের সন্তানদের অল্প খরচে সুদক্ষ ও আলোকিত মানুষ করে গড়ে তোলার লক্ষে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি গড়ে তুলেছি। ইউআইটিএস এর অনুষ্ঠানে কষ্ট করে উপস্থিত হওয়ার জন্য তিনি অতিথিদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এর ডিন ড. মোঃ মিজানুর রহমান এর সঞ্চালনায় আজ ঢাকার বারিধারাস্থ ইউআইটিএস-এর ক্যাম্পাসে উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ সোলায়মান-এর সভাপতিত্বে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান এবং পিএইচপি ফ্যামিলির মানব সম্পদ ও প্রশাসনের  নির্বাহী পরিচালক আহমদ সিপারউদ্দীন। এতে স্বাগত ভাষণ দেন ইউআইটিএস-এর কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস. আর. হিলালী।

অনুষ্ঠান শেষে ইউআইটিএস-এর পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক আ.ন.ম. শরীফ উপস্থিত সকল আমন্ত্রিত অতিথিদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে সমাপনী বক্তব্য দেন। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান, স্কুল অব লিবারাল আর্টস অ্যান্ড সোস্যাল সায়েন্স এর ডিন ড. আরিফাতুল কিবরিয়া, পরিচালক রিসার্চ সেন্টার অধ্যাপক মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান, সকল বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীগন।

ইউআইটিএস এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উদ্যোগে “দ্বিতীয় সিভিল ফেস্ট- ২০১৬” অনুষ্ঠিত

৫ আগষ্ট ২০১৬ সকাল ৯:৩০টা থেকে রাত ৯:০০টা পর্যন্ত ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উদ্যোগে “দ্বিতীয় সিভিল ফেস্টিভাল- ২০১৬”  এর সমাপনী অনুষ্ঠান বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ( জামালপুর টুইন টাওয়ার, বারিধারা, ঢাকা-১২১২) অনুষ্ঠিত হয়। সিভিল ফেস্টের সমাপনী দিন শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য দেশবরেণ্য শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সোলায়মান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সাংস্কৃতিক এবং পুরষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড. এম. কায়কোবাদ, অধ্যাপক, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)। এছাড়াও অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কোষাধ্যক্ষ ড. এস. আর. হিলালী, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আহমেদ শিবলী নোমান, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসহ  বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল  শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ। সেমিনার সঞ্চালনা করেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষক কামরুন্নাহার খান মুক্তি।

ইউআইটিএস এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উদ্যোগে “ 2nd Civil Fest-2016” অনুষ্ঠিত।

৪ আগষ্ট ২০১৬ বৃহস্পতিবার ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উদ্যোগে “ 2nd Civil Festival 2016 ” অনুষ্ঠিত হয়। দু’দিন ব্যাপী আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রথম দিন সকাল ১১টায় স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এর ডিন ড. মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত “The Role of Civil Engineers for Sustainable Development” শীর্ষক সেমিনারে মূল আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর ওয়াটার রিসোর্সেস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. মোঃ আতাউর রহমান। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য দেশবরেণ্য শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সোলায়মান এবং সম্মানিত অতিথি ছিলেন ট্রাস্টি বোর্ডের সম্মানীয় উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান।  অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনবৃন্দ, শিক্ষকগণ ও শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। সেমিনার সঞ্চালনা করেন সিভিল বিভাগের শিক্ষক খাদিজা বিন্ত আব্দুর রউফ।

দুপুর ২টায় “বৈজ্ঞানিক গবেষনা উপস্থাপনা” (Scientific Research Presentation)  অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য  প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সোলায়মান। বিশেষ অতিথি ছিলেন অধ্যাপক ড. মোঃ মাজহারুল হক, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এবং অধ্যাপক ড. আফজাল আহমেদ, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, এমআইএসটি। উপস্থাপনায় আরও উপস্থিত ছিলেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগিয় প্রধান আহমেদ শিবলী নোমানসহ শিক্ষকবৃন্দ। এছাড়াও শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রজেক্ট, চিত্র প্রদর্শনী, গেম শো এবং মুভি শো অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনার সঞ্চালনা করেন ইউআইটিএস এর সহকারী অধ্যাপক মোঃ খোরশেদ আলী।

সিভিল ফেস্টের দ্বিতীয় দিন শুক্রবার সাংস্কৃতিক এবং পুরষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দেশের স্বনামধন্য শিল্প উদ্যোক্তা পিএইচপি ফ্যামিলি এবং ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। বিশেষ অতিথি থাকবেন ড. এম. কায়কোবাদ, অধ্যাপক, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এবং অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান, উপদেষ্টা, ট্রাস্টি বোর্ড, ইউআইটিএস।

ইউআইটিএস এর ইংরেজী বিভাগের উদ্যোগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান “সেলিব্রেশন অব্ দ্য গ্রেটস্ : রবীন্দ্রনাথ, নজরুল এবং শেক্সপিয়র”

৩ আগষ্ট ২০১৬ বুধবার ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর ইংরেজী বিভাগের উদ্যোগে “সেলিব্রেশন অব্ দ্য গ্রেটস্ : রবীন্দ্রনাথ, নজরুল এবং শেক্সপিয়র” শীর্ষক সেমিনার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য দেশবরেন্য শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সোলায়মান,  বিশেষ অতিথি ছিলেন  কোষাধ্যক্ষ ড. এস. আর. হিলালী। স্বাগত বক্তব্য দেন ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সৈয়দা আফসানা ফেরদৌসী। সেমিনারে ‘শেক্সপিয়র-রবীন্দ্রনাথ-নজরুল: বিশ্বমানবতা, শান্তি ও মুক্তির বার্তা-প্রচারক’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, গবেষক ও সাহিত্য সমালোচক ড. ফজলুল হক সৈকত। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক তানিয়া তাবাস্সুম।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পর্বে ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী  পিংকী, সূচনা ও জ্যোতির উপস্থাপনায় পরিবেশিত হয় রবীন্দ্রনাথ ও নজরুলের কবিতা আবৃত্তি, নৃত্য ও সঙ্গীত। এছাড়াও শেক্সপিয়রের নাটক ‘মার্চেন্ট অব ভেনিস’ মঞ্চস্থ হয়। অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনবৃন্দ, শিক্ষকগণ ও শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে।

‘জঙ্গিবাদ রুখবো সোণার বাংলা গড়বো’ এই শ্লোগানে ইউআইটিএস এর উদ্যোগে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে মানব বন্ধন, র‌্যালি ও আলোচনা সভা

গত ১ জুলাই ২০১৬ তারিখে হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্ট, গুলশান এবং পরবর্তীতে ৭ জুলাই শোলাকিয়া ঈদগাহ কিশোরগঞ্জে মর্মন্তদ জঙ্গি হামলার প্রতিবাদে আজ ১ আগষ্ট সোমবার র‌্যালি, মানব বন্ধন ও আলোচনা সভা করলো ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)। ইউআইটিএস এর মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সোলায়মান এর নেতৃত্বে সকাল ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণ থেকে শুরু করে বারিধারা, গুলশান, বাড্ডাসহ  পার্শ্ববর্তী এলাকাসমূহে মানব বন্ধন ও র‌্যালি শেষে ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ইউআইটিএস এর জঙ্গিবাদ বিরোধী এ অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় স্থানীয় সংসদ সদস্য জনাব এ কে এম রহমতুল্লাহ উপস্থিত হয়ে বক্তব্য রাখেন। এসব অনুষ্ঠানে ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত উপদেষ্টা প্রফেসর ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান, কোষাধ্যক্ষ ড. এস. আর. হিলালী, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আ. ন. ম. শরীফ, রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান, সকল অনুষদের ডিন, শিক্ষকমন্ডলী, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীরা স্বতস্ফুর্তভাবে অংশগ্রহণ করে। আলোচনা সভায় যে কোন ধরনের অনাকাক্সিক্ষত ও অনভিপ্রেত ঘটনার মাধ্যমে যাতে জাতীয় স্থিতিশীলতা বিনষ্ট করার জন্য কোন মহল আর কোন অপপ্রয়াস চালাতে না পারে সে বিষয়ে সচেতন থাকার আহবান জানান আলোচকবৃন্দ।

ইউআইটিএস এর ইংরেজী বিভাগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান “সেলিব্রেশন অব্ দ্য গ্রেটস্ : রবীন্দ্রনাথ, নজরুল এবং শেক্সপিয়র”

আগমী ৩ আগষ্ট ২০১৬ বুধবার ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর ইংরেজী বিভাগ একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে যাচ্ছে। “সেলিব্রেশন অব্ দ্য গ্রেটস্ : রবীন্দ্রনাথ, নজরুল এবং শেক্সপিয়র” নামে এই অনুষ্ঠানটি ছাত্রছাত্রীদের শুদ্ধ সংস্কৃতি চর্চায় সমৃদ্ধ করবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির পদ অলংকৃত করবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সোলায়মান। বিশেষ অতিথি ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত উপদেষ্টা প্রফেসর ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান এবং সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন কোষাধ্যক্ষ ড. এস. আর. হিলালী। অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা ড. ফজলুল হক সৈকত, সহযোগী অধ্যাপক, বাংলা বিভাগ, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। স্বাগত বক্তব্য দিবেন ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সৈয়দা আফসানা ফেরদৌসী। সাংস্কৃতিক পর্বে থাকবে রবীন্দ্রনাথ- নজরুলের কবিতা, গান ও নৃত্য এবং শেক্সপিয়রের শ্রেষ্ঠ ট্র্যাজিকমেডি ‘মার্চেন্ট অব ভেনিস’ এর মঞ্চায়ন।

ইউআইটিএস-এ উদযাপিত হল Business Promotion Day 2016.

ইউআইটিএস স্কুল অব বিজনেস এর উদ্যোগে ৩০ জুলাই ২০১৬ শনিবার বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয় ‘বিজনেস প্রমোশন ডে ২০১৬’। বিজনেস প্রমোশন ডে উপলক্ষে আয়োজিত মেলায় প্রধান স্পন্সর ছিলো প্রাণ ডেইরি লিমিটেড। স্কুল অব বিজনেস এর শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সহযোগিতায় দিনব্যাপী আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে স্বনামধন্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ব্র্যান্ড ১২টি ভিন্ন ভিন্ন বিষয় ভিত্তিক স্টলে তাদের পন্যের প্রচারনায় অংশগ্রহন করে। মেলাতে বিভিন্ন থিম যেমন- অনলাইন শপিং, এন্টারপ্রেনারশীপ, সেলসম্যানশীপ, ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট, বুক ফেয়ার, ফ্যাশন ডিজাইনিং, হ্যান্ডিক্রাফ্টস, ফুড, ক্যাটারিং সার্ভিস ইত্যাদি স্টলের আয়োজন করা হয়।  এসব স্টলে রবি, ডাচ্ বাংলা ব্যাংক, ইউ আই সিস্টেমস্, হেলথ প্রায়ার ডট কম, রকমারী ডট কম, সিসিলি বিউটি পার্লার তাদের প্রডাক্ট প্রদর্শন করে ও কোম্পানির অভিজ্ঞ প্রতিনিধিরা শিক্ষার্থী ও আগত অতিথিদের বিভিন্ন বিষয়ে অবহিত করেন। সকাল ১টায় বিশিষ্ট শিল্পপতি পিএইচপি ফ্যামিলির প্রতিষ্ঠাতা ও ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান মেলার উদ্বোধন করেন এবং স্টলগুলো ঘুরে দেখেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস এর উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ সোলায়মান, বোর্ড অব ট্রাস্টিজের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান, কোষাধ্যক্ষ ড. এস. আর. হিলালী, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহম্মদ কামরুল হাসান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর আ. ন. ম. শরীফ, বিজনেস স্কুলের ডিন মোহাম্ম নাজমুল হাসান  এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ছাত্র-ছাত্রী ও  শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ।

মেলা আয়োজনের মূল উদ্দেশ্য ছিলো স্কুল অব বিজনেস এর শিক্ষার্থীদের জন্য একটি প্লাটফর্ম তৈরী করা যেখানে তারা তাদের কোর্স রিলেটেড বিভিন্ন বিষয় যেমন মার্কেটিং, ফান্ড ম্যানেজমেন্ট, সেলিং, কমিউনিকেশন ইত্যাদি বিষয়ে বস্তব অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারে, যা শিক্ষার্থীদের পেশাগত জীবনে আত্ববিশ্বাস সৃষ্টি করবে। মেলাতে দর্শক ও শিক্ষার্থীদের জন্য র‌্যাফেল ড্র, ফিউচার কর্ণার, হাত দেখা, বিউটিফিকেশন, ফটোগ্রাফী ও সেলফি কন্টেস্ট এর আয়োজন করা হয় এবং বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরন করা হয়। এই মেলা সকলের জন্য একটি আনন্দময় মিলন মেলায় পরিনত হয় এবং শিক্ষার্থীরা ব্র্যান্ডিং ও মার্কেটিং এর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দিক সম্পর্কে ধারনা লাভ করে।

ইউআইটিএস-এ “কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক প্রশিক্ষণ” কর্মশালা

কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)- ক্যাম্পাসে ২৯ জুলাই ২০১৬ অনুষ্ঠিত হলো কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক একটি বিশেষ প্রশিক্ষণ কর্মশালা। বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল কর্মচারিদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এ প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রথম সেশনে আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট-এর সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট কাউন্সেলর সালাউদ্দীন আহমদ। দ্বিতীয় সেশনে Team Building বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করেন ইউআইটিএস-এর মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান। তৃতীয় সেশনে পিএইচপি ফ্যামিলির মানব সম্পদ ও প্রশাসনের নির্বাহী পরিচালক আহম্মদ সিপারউদ্দীন আলোচনা করেন নিরাপত্তা, স্বাস্থ্য ও পরিবেশ প্রসঙ্গে। এছাড়াও এ প্রশিক্ষণ কর্মশালায় আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী।

ইউআইটিএস-এ “কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক প্রশিক্ষণ” কর্মশালা

কর্মকর্তাদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)- ক্যাম্পাসে ২৮ জুলাই ২০১৬  অনুষ্ঠিত হলো কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক একটি বিশেষ প্রশিক্ষণ কর্মশালা। বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অফিসার ও কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এ প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট-এর সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট কাউন্সেলর সালাউদ্দীন আহমদ। এছাড়াও এ প্রশিক্ষণ কর্মশালায় আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিএইচপি ফ্যামিলির মানব সম্পদ ও প্রশাসনের নির্বাহী পরিচালক আহমদ সিপারউদ্দীন। ইউআইটিএস-এর মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান-এর সভাপতিত্বে পরিচালিত এ প্রশিক্ষণে আরো উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহম্মদ কামরুল হাসানসহ অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষানিয়ন্ত্রক, রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক ও সকল অনুষদের ডিনবৃন্দ। কর্মশালার সমপনী বক্তব্য রাখেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী।

ইউআইটিএস ফার্মেসি ক্লাবের উদ্যোগে উদযাপিত হলো “বিশ্ব হেপাটাইটিস-এ দিবস”

জনসচেতনতা গড়ে তোলার জন্য “হেপাটাইটিস-এ ভাইরাস বিলুপ্তির সু-পরিকল্পনা” সেøাগানকে প্রতিপাদ্য করে আজ ২৮শে জুলাই ২০১৬, বৃহস্পতিবার সকাল ১১ঃ০০ টায় ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর ফার্মেসি বিভাগের আয়োজনে “বিশ্ব হেপাটাইটিস-এ দিবস” উদযাপিত হয়। হেপাটাইটিস-এ এবং জরায়ুমুখের ক্যান্সার বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইন বাংলাদেশ লিমিটেড-এর প্রোডাক্ট ম্যানেজার সাকেরা সুলতানা অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ইউআইটিএস এর মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর মাননীয় উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে. এম. সাইফুল ইসলাম খান। এছাড়ও অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস এর কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী এবং রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান বলেন, আজকের এই জনসচেতনতামূলক অনুষ্ঠান আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যা মানুষকে অনাকাঙ্খিত দুর্দশা থেকে রক্ষা করার হাতিয়ার হিসেবে কাজ করবে। তিনি ইউআইটিএস-ফার্মেসি ক্লাবের সকল সদস্য ও উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে তার বক্তব্য শেষ করেন।

এরপর শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর মাননীয় উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে. এম. সাইফুল ইসলাম খান বলেন, এই ধরনের সচেতনতামূলক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা ইবাদতের সমান।

অনুষ্ঠানে আলোচকের বক্তব্যে গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন বাংলাদেশ এর প্রোডাক্ট ম্যানেজার সাকেরা সুলতানা বলেন, বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক শ্রেণীতে প্রতি পাঁচজনে একজন প্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তি এবং প্রতি দুইজনে একজন কিশোরা-কিশোরী হেপাটাইটিস-এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে আছে। তিনি তার বক্তৃতায় হেপাটাইটিস-এ রোগের কারণ, প্রতিকার ও প্রতিষেধকের বিষয়গুলো তুলে ধরেন। এছাড়াও তিনি মেয়েদের জরায়ু-মুখের ক্যান্সার-এর লক্ষণ, উপসর্গ ও প্রতিকার বিষয়ে আলোচনা করেন এবং সচেতন থাকার পরামর্শ দেন।

অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন ফার্মেসি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মোঃ মোফাজ্জল হোসেন ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন প্রভাষক মোঃ মেহেদী হাসান।

ইউআইটিএস-এ উদযাপিত হতে যাচ্ছে Business Promotion Day 2016.

আগমী ৩০ জুলাই ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘Business Promotion Day 2016।  বিজনেস স্কুলের পক্ষ থেকে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানটি চলবে সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। স্কুল অব বিজনেস বিভাগের ডিন মোঃ নাজমুল হাসান এর সভাপতিত্বে পরিচালিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিশিষ্ট শিল্পপতি পিএইচপি ফ্যামিলির প্রতিষ্ঠাতা ও ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। এবং বিশেষ অতিথি থাকবেন বোর্ড অব ট্রাস্টিজের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ সোলায়মান। এছাড়াও কোষাধ্যক্ষ ড. এস. আর. হিলালী, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর আ. ন. ম. শরীফ, বিজনেস স্কুলসহ  বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল  শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ। এই আয়োজনে বাংলাদেশের বিভিন্ন স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান ও ব্রান্ড তাদের প্রোডাক্ট প্রোমোট করবেন এবং বিজনেস বিভাগের শিক্ষার্থীরাও একইসাথে নিজ উদ্যোগে করা বিভিন্ন প্রোডাক্ট ও মার্কেটিং আইডিয়া শেয়ার করবে। প্রাণ আর এফ এল গ্রুপ এই আয়োজনটির ইভেন্ট পার্টনার হিসেব থাকছে। বিজনেস বিভাগের পক্ষথেকে সকল ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকগণকে অংশগ্রহণ করে এ অনুষ্ঠানকে সফল করার আহবান জানিয়েছেন।

ইউআইটিএস-এ অনুষ্ঠিত হলো “কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক প্রশিক্ষণ” কর্মশালা।

কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর বারিধারাস্থ মেইন ক্যাম্পাসে ২০ জুন ২০১৬  অনুষ্ঠিত হলো একটি বিশেষ প্রশিক্ষণ কর্মশালা। সকল অফিসার, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অংশগ্রহণে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত এ প্রশিক্ষণ কর্মশালায় আলোচক ছিলেন পিএইচপি ফ্যামিলির মানব সম্পদ ও প্রশাসনের নির্বাহী পরিচালক আহমদ সিপারউদ্দীন, ইউআইটিএস-এর মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান এবং ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সম্মানিত উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান। বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন সøাইডশো এর মাধ্যমে পরিচালিত এ প্রশিক্ষণে আরো উপস্থিত ছিলেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহম্মদ কামরুল হাসানসহ অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষানিয়ন্ত্রক, রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক ও সকল অনুষদের ডিনবৃন্দ।

ইউআইটিএস-এর নবীন বরণ অনুষ্ঠানে সুফি মুহাম্মদ মিজানুর রহমান “ইউআইটিএস বিভিন্ন পেশাদারী শিক্ষায় হাজারও শিক্ষার্থীকে উন্নয়নের সৈনিক হিসেবে তৈরী করছে।”

বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ইউআইটিএস বিভিন্ন পেশাদারী শিক্ষায় হাজার হাজার শিক্ষার্থীকে এ পর্যন্ত জাতির উন্নয়নের সৈনিক হিসেবে তৈরী করার বিশেষ অবদান রাখতে সক্ষম হয়েছে। আজ ১৪ জুন, মঙ্গলবার ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি এন্ড সায়েন্সেসের (ইউআইটিএস)-এর  গ্রীষ্মকালীন সেমিস্টার-২০১৬ নবীনবরণ অনুষ্ঠানে বোর্ড অব ট্রাস্ট্রিজ এবং পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ্ব সূফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

নবাগত ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, প্রত্যেক মানুষ তার প্রয়োজনের অতিরিক্ত কতটুকু কাজ করছে, তার ওপর নির্ভর করে তার জীবনের সফলতা। জীবনে সফল হতে হলে একই সঙ্গে প্রয়োজন ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি, আত্মবিশ্বাস, নিয়মানুবর্তিতা, কঠোর পরিশ্রম করার মানসিকতা ও সততা। আর একজন মানুষ যখন এসকল গুণাবলী অর্জন করে তা পরিপূর্ণরূপে বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হন, তখনই তার জীবনে উন্নতি ঘটে, তার জীবন হয় উন্নত ও মহৎ।

তিনি বলেন, যে জাতি যত বেশি শিক্ষিত সে জাতি তত বেশি উন্নত। মানুষের জীবনের যে অসিম শক্তি লুকানো আছে তাকে জাগ্রত করে, জীবনের সমস্ত বাধাকে মোকাবেলা করে অভিষ্ঠ লক্ষ্যে পৌছার সুযোগ করাই সত্যিকারের নেতৃত্ব। শ্রেষ্ঠত্বের অধিকারি মানব সন্তানকে বিধাতা করুনা বলে মহান করে সৃষ্টি করেছেন। এ কারনে যে, পৃথিবীতে মানব সন্তান বিধাতার প্রতিনিধিত্ব করবেন। শিক্ষার সাথে দীক্ষা, বিদ্যার সাথে বিনয়, কর্মের সাথে নিষ্ঠা, জীবনের সাথে মুল্যবোধ, মানব প্রেম এবং দেশ প্রেমের সংমিশ্রন ঘটাতে না পারলে প্রকৃত পক্ষে সে শিক্ষা আসল শিক্ষা নয়। মানুষের মত এত মহীয়ান, এত শক্তিমান আর কোন সৃষ্টি এ বিশ্ব ভ্রমান্ডে নেই। তাই মানব সন্তানদের মধ্যে লুকানো অমৃত শক্তিকে জাগ্রত করে, মানবীয় গুণাবলীতে বলীয়ান মানব সন্তানদেরকে নিজের শক্তিতে দাড়িয়ে অভিষ্ঠ লক্ষে পৌছানোর মানসে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক মন্ডলির সহায়তায় আমরা আলোকিত মানুষ তৈরী করছি। তিনি আরো বলেন, আমার অন্তরে এ দেশের সন্তানদের শিক্ষার জন্য জ্বালা আছে। এ কারনে আমি দেশের সন্তানদের অল্প খরচে সুদক্ষ ও আলোকিত মানুষ করে গড়ে তোলার লক্ষে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি গড়ে তুলেছি। যদি সম্ভব হয় ও সুযোগ পাই এ দেশে আরও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করে দেশকে সোনার দেশে পরিনত করতে চাই।

আজ ঢাকার বারিধারাস্থ ইউআইটিএস-এর ক্যাম্পাসে উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ সোলায়মান-এর সভাপতিত্বে নবীন বরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান এবং পিএইচপি ফ্যামিলির মানব সম্পদ ও প্রশাসনের  নির্বাহী পরিচালক আহমদ সিপারউদ্দীন।

নবাগত ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইউআইটিএস-এর কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী।

অনুষ্ঠান শেষে ইউআইটিএস-এর স্কুল অব লিবারাল আর্টস অ্যান্ড সোস্যাল সায়েন্সেস এর ডিন ড. আরিফাতুল কিবরিয়া উপস্থিত সকল আমন্ত্রিত অতিথিদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন দেশবরেণ্য শিক্ষাবিদ ও সমাজের বিভিন্ন স্তরের সম্মনিত ব্যক্তিবর্গ এবং ইউআইটিএস-এর সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও নবীন শিক্ষার্থীরা। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ইউআইটিএস-এর ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান।

ইউআইটিএস-এ অনুষ্ঠিত হল বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০১৬ এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

alt ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর বারিধারাস্থ মেইন ক্যাম্পাসে ৩০ মে অনুষ্ঠিত হয় বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০১৬ এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রতিযোগিদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত সদস্য মোহাম্মদ আলী হোসেন। উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান ও কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী। বিভিন্ন কেটাগরিতে দশদিনব্যাপী অনুষ্ঠেয় দাবা, লুডু, কেরাম, টেবিলটেনিস ও ক্রিকেট প্রভৃতি খেলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসানসহ সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং-এর ডিন ড. মিজানুর রহমান।

পাঠ দানের মানোন্নয়নে ইউআইটিএস-এ অনুষ্ঠিত হল বিশেষ শিক্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালা

পাঠ দানের মানোন্নয়নে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর বারিধারাস্থ মেইন ক্যাম্পাসে ১২ মে ২০১৬ অনুষ্ঠিত হল একটি বিশেষ শিক্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালা “Teaching- inspiring thirst for creation of knowledge” শিরোনামে অনুষ্ঠিত এ কর্মশালায় আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)-এর কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের স্বনামধন্য শিক্ষক অধ্যাপক ড. এম কায়কোবাদ শিক্ষকদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য স্লাইডশো এর মাধ্যমে পরিচালিত এ প্রশিক্ষণে অংশ গ্রহণ করেন ইউআইটিএস-এর মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক আ ন ম শরীফ, অনুষদের ডিনবৃন্দ, বিভাগীয় প্রধানসহ সকল বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষিকাগণ অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন স্কুল অব সোস্যাল সায়েন্স অ্যান্ড লিবারাল আর্টস এর ডিন ড. আরিফাতুল কিবরিয়া

ইউআইটিএস-এ বিদায়ী উপ-উপাচার্য কে সংবর্ধনা

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)- এর বারিধারাস্থ মেইন ক্যাম্পাসের সেমিনার কক্ষে ৬ মে ২০১৬ সন্ধ্যা ৭ টায় উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া-এর বিদায় উপলক্ষে সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান, উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী, পিএইচপি ফ্যামিলির নির্বাহী পরিচালক (মানব ও প্রশাসন) আহমদ সিপার উদ্দিন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনবৃন্দ, প্রক্টর, বিভাগীয় প্রধান ও কর্মকর্তাগণ। প্রফেসর জাকারিয়া ইউআইটিএস এ কর্মরত থাকাকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের উদ্যোগ গ্রহণ করেন। ইউআইটিএস-এ যোগদানের পূর্বে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ও প্রক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ইউআইটিএস-এর ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান।

Professor Dr. Solaiman New Vice Chancellor of UITS

Dr. Mohammed Solaiman, former Supernumerary Professor of Marketing Department of University of Chittagong has joined the University of Information Technology and Sciences (UITS), Baridhara, Dhaka, Bangladesh as its Vice Chancellor. He has rare achievements in his distinguished career. He enjoyed many scholarships and fellowships including the prestigious US Fulbright Fellowship and the Commonwealth Scholarship. He visited many countries such as India, Pakistan, Malaysia, USA, Japan, Sri Lanka, Nepal, Singapore, Bhutan, Maldives, and China as part of higher education and international seminar participation.

Professor Dr. Solaiman accomplished many research grants with the sponsorships of such institutions as DFID, IDB, AMDISA, CIDA, UGC and CURC in his prolific research career. He also finished ten research monographs. He was given governmental grants for finishing the research project called “Financial Organization Design for the Local Government”, “Strategy for Small Business Development”. He has more than 150 business related research articles to his credit. In addition, Professor Solaiman published seven basic books. He also held the Chairmanship of the Department of Marketing at the University of Chittagong and performed his duty as the Provost of the Shahjalal Hall in the same University.

 

ইউআইটিএস-এ বিদায়ী উপাচার্য-কে সংবর্ধনা

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর বারিধারাস্থ মেইন ক্যাম্পাসের সেমিনার কক্ষে ৩ মে ২০১৬ দুপুর ৩ টায় বিদায়ী উপাচার্য ড. মু্‌হাম্মদ সামাদ-এর বিদায় উপলক্ষে এক সম্বর্ধনার আয়োজন করা হয়। ইউআইটিএস-এর কোষাধ্যক্ষ ড. এস আর হিলালী’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিদায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিএইচপি ফ্যামিলি ও ইউআইটিএস ট্রাস্টি বোর্ডের মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বিদায়ী উপাচার্য ড. মুহাম্মদ সামাদকে সফলভাবে তার দায়িত্ব পালনের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানান ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন। পাশাপাশি শিক্ষকদেরকে শিক্ষকতা পেশাকে জীবনের ব্রত হিসেবে গ্রহণ করে ছাত্র-ছাত্রীদেরকে যোগ্য করে গড়ে তোলার আহবান জানান তিনি। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর নবনিযুক্ত উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ সুলাইমান, অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য ও পি এইচ পি পরিবারের নির্বাহী পরিচালক (মানব ও প্রশাসন) জনাব আহমেদ সিপারউদ্দীন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক আ ন ম শরীফ, রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক, সকল অনুষদের ডীনগণ, প্রক্টর, বিভাগীয় প্রধান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ইউআইটিএস-এর ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান।

ইউআইটিএস-এ বাংলা বর্ষবরণ উদযাপন

BDwbfvwm©wU Ae Bbdi‡gkb †UK‡bvjwR A¨vÛ mv‡q‡Ým (BDAvBwUGm) Gi dv‡g©mx I mgvRKg© wefvM cvjb Kij Ò evsjv el©eiY-1423Ó| BDAvBwUGm-Gi evwiaviv¯’ †gBb K¨v¤úv‡m 25 GwcÖj w`b e¨vwc eY©vX¨ G Av‡qvR‡bi cÖ_g c‡e© mgvRKg© wefv‡Mi mnKvix Aa¨vcK RvwKqv myjZvbvi mfvcwZ‡Z¡ AbywôZ Av‡jvPbv Abyôv‡bi cÖavb AwZw_ wn‡m‡e Dcw¯’Z wQ‡jb ¯‹zj Ae wjev‡ij AvU©m A¨vÛ †mvm¨vj mv‡qÝ-Gi m¤§vbxZ Wxb I mgvRKg© wefv‡Mi wefvMxq cÖavb W. AvwidvZzj wKewiqv| cÖavb AwZw_ evsjv bee‡l©i m~Pbv I nRvi eQ‡ii HwZn¨evnx evsjvi wewfbœ Abyôv‡bi cwiwPwZ Zz‡j a‡ib Zvi e³‡e¨| Gi Av‡M ¯^vMZ e³‡e¨ bee‡l©i gva¨‡g mKj †f`v‡f` fz‡j mevB wg‡j GKwU my›`i RvwZ MV‡bi Avnevb Rvwb‡q Abyôvb ïiæ K‡ib dv‡g©mx wefv‡Mi wefvMxq cÖavb Rbve †gvt †gvdv¾j †nv‡mb| GQvovI we‡kl AwZw_ wn‡m‡e Dcw¯’Z wQ‡jb BDAvBwUGm-Gi fvicÖvß †iwR÷ªvi †gvnv¤§` Kvgiæj nvmvb, ¯‹zj Ae weR‡bm-Gi Wxb †gvt bvRgyj nvmvb, wmGmB G¨vÛ AvBwU wefv‡Mi wefvMxq cÖavb †gvt ivqnvb DwÏb Avn‡g`, Bs‡iRx wefv‡Mi wefvMxq cÖavb ˆmq`v Avdmvbv †di‡`Šwm I wewfbœ wefv‡Mi wkÿK-wkwÿKv, Awdmvi Ges QvÎ-QvÎxe„›`| Abyôv‡bi wØZxq c‡e© QvÎ-QvÎx‡`i AskMÖn‡Y bvP, Mvb I †KŠZz‡Ki cvkvcvwk we‡kl AvKl©Y wn‡m‡e g¯’ nq bvUK ÒwÎf~R †cÖgÓ| AbyôvbwU mÂvjbv K‡ib mgvRKg© wefv‡Mi QvÎ †gvt mvB`yi ingvb|

ইউআইটিএস-এ পহেলা বৈশাখ উদযাপন

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর বারিধারা ক্যাম্পাসেবাংলা নববর্ষ-১৪২৩দযাপিত হয়নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে নতুন বছরকে বরণ করে নেয় ইউআইটিএস

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী এম জাকারিয়া, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ কামরুল হাসান, আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মোহাম্মদ মনির হোসেন ও প্রক্টর পলাশ চন্দ্র কর্মকার

আরো উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক জনাব মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান, উপ-উপাচার্যের পিএস ও সহকারী রেজিস্ট্রার জনাব কে এম শাকিল হোসেন, সহকারী রেজিস্ট্রার জনাব মাহমুদ হোসেন খান, জনসংযোগ কর্মকর্তা জনাব আবু সাঈদ মোহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান, বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী, ছাত্র-ছাত্রী ও আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ

ইউআইটিএস-এ ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট এবং মার্কেটিং বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর ডিপার্টমেন্ট অব বিজনেস স্টাডিজ-এর উদ্যোগে ৯ এপ্রিল ২০১৬ তারিখ, শনিবার ‘‘ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড মার্কেটিং’’ শীর্ষক একটি সেমিনার বারিধারা ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয়।

এই সেমিনারটি ৫ম, ৬ষ্ঠ, ৭ম, সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদেরকে মার্কেটিংকে মেজর সাবজেক্ট হিসেবে বেছে নেয়ায় উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যে আয়োজন করা হয়। উক্ত সেমিনারে মার্কেটিং জগতে অ্যাডভারটাইজমেন্ট, রিসার্চ, ব্রান্ড মেনেজমেন্ট ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ, মার্কেটিং বিষয়ে গুরুত্ব সম্ভাব্য মার্কেটিং ক্যারিয়ার কোন কোম্পানিগুলোতে উন্মুক্ত আছে ইত্যাদি বিষয় তুলে ধরা হয়।

এ অনুষ্ঠানে মার্কেটিং ওয়ার্ল্ডের নতুন নতুন সব ডেভেলপমেন্ট ও তথ্য প্রযুক্তির বিবিধ ব্যবহার সম্পর্কে বিজনেস স্টুডেন্টদেরকে পরিচিত করানো এবং ইউআইটিএস মার্কেটিং এসোসিয়েশনের শুভ উদ্বোধন করার লক্ষ্যে এই আয়োজনটি করা হয়। সেমিনারটি তিনটি ভাগে বিভক্ত ছিলো। প্রথম পর্বে কীনোট প্রেজেন্টেশন, দ্বিতীয় পর্বে ক্রিয়েটিভ অ্যান্ড মেকিং কম্পিটিশন এবং তৃতীয় পর্বে ইউআইটিএস মার্কেটিং এসোসিয়েশনের উদ্বোধন করা হয়।

সেমিনারে একটি ক্রিয়েটিভ অ্যাডভারটাইজমেন্ট প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে চ্যাম্পিয়ন হয় বিবিএ ডিপার্টমেন্টের শিক্ষার্থীদের তৈরি করা অ্যাড “ ইউআইটিএস” এবং রানার আপ হয় আইএমবিএ স্টুডেন্টদের তৈরি করা “ট্রাফিক এ্যাওয়ারনেস” অ্যাডটি বিজয়ীদের মাঝে উপ-উপাচার্য ড. জাকারিয়া বিজয়ীদের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া কেক কেটে উক্ত ‘‘ইউআইটিএস মার্কেটিং এসোসিয়েশন’’-এর উদ্বোধন করেন। এ এসোসিয়েশনটি মার্কেটিং জগতের নতুন নতুন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অগ্রগতি শিক্ষার্থীদের মাঝে ছড়িয়ে দেবে, ইউআইটিএস-এর ডিপার্টমেন্ট অব বিজনেস স্টাডিজ অ্যালামনাইদের সাথে বর্তমান শিক্ষার্থীদের মাঝে একটি সংযোগ ঘটাবে, যাতে তারা পারস্পরিক সহযোগীতার মাধ্যমে ইর্ন্টানশীপ প্লেসমেন্ট এবং মার্কেটিং জব অপার্চুনিটিজ বিষয়গুলোকে আরও সাচ্ছন্দ্যে নিজেদের মাঝে শেয়ার করতে পারে এবং মেজর সাবজেক্ট ঘোষনা করার জন্য যে সকল কাউন্সিলিং-এর প্রয়োজন তাও এই এসোসিয়েশনের মাধ্যমে দেয়া হবে বলে জানানো হয়।

 

এ সময়ে আরো উপস্থিত ছিলেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ কামরুল হাসান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর আ ন ম শরীফ, স্কুল অব বিজনেস-এর ডিন ও ডিপার্টমেন্ট অব বিজনেস স্টাডিজ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মোঃ নাজমুল হাসান এবং বিভাগের অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।

ইউআইটিএস-এর ইংরেজী বিভাগে নন-ক্রেডিট কোর্স

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর ইংরেজী বিভাগের উদ্যোগে নন-ক্রেডিট কোর্স চালুকরণ বিষয়ে আলোচনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া। অনুষ্ঠানটি গত ৬ এপ্রিল ২০১৬ তারিখ, বুধবার বিকাল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত হয়।

ইংরেজী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সৈয়দা আফসানা ফেরদৌসীর পরিচালনায় আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন সহকারী অধ্যাপক মুমিনা খানম মিমি। এ নন-ক্রেডিট কোর্সটি  চালু হলে শিক্ষার্থীদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে বলে উপস্থিত সকলে একমত পোষন করেন।

 

এ আলাচনা অনষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ট্রেজারার প্রফেসর ড. এস. আর হিলালী, স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডীন ড. মোঃ মিজানুর রহমান, স্কুল অব বিজনেস-এর ডীন মোঃ নাজমুল হাসান, স্কুল অব লিবারাল আর্টস অ্যান্ড সোস্যাল সায়েন্স-এর ডীন ড. আরিফাতুল কিবরিয়া এবং সিএসই বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব রায়হান উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

 

ইউআইটিএস-এর আইন বিভাগের নবীনবরণ অনুষ্ঠানে ভূমি মন্ত্রী “নিজের জীবনকে গড়লে পরিবারকে গড়া হবে”

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর আইন বিভাগের উদ্যোগে আনন্দমুখর পরিবেশে নবীনবরণ বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় ভূমি মন্ত্রী জনাব শামসুর রহমান শরীফ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, নিজের জীবনকে গড়লে পরিবারকে গড়া হবে, গ্রামকে গড়া হবে, সারা বাংলাদেশকে গড়া হবে তাহলেই সোনার বাংলা হবে এদেশ তিনি আরো বলেন, একটি অসাম্প্রদায়িক ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার জন্য তোমরা দেশপ্রেমিক সৈনিক হয়ে নিজের জীবনকে গড় সুখী-সমৃদ্ধ ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে আমাদের সম্মিলিতভাবে কাজ করে যেতে হবে

নবীনবরণ অনুষ্ঠানটি এপ্রিল ২০১৬ তারিখ, মঙ্গলবার দুপুর ০২টায় আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মোহাম্মদ মনির হোসেন-এর সভাপতিত্বে নবীনবরণ বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বারিধারা ক্যাম্পাসের মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় ভূমি মন্ত্রী জনাব শামসুর রহমান শরীফ বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর মাননীয় উপ-উপাচার্য প্রফেসর . চৌধুরী এম জাকারিয়া এবং আইন বিভাগের উপদেষ্টা বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের অ্যাডভোকেট জনাব আব্দুল মান্নান ভূঁইয়া

বিশেষ অতিথি প্রফেসর . চৌধুরী এম. জাকারিয়া বলেন, ইউআইটিএস-এর প্রথম দ্বিতীয় সমাবর্তনে ভারতের প্রয়াত প্রেসিডেন্ট এপিজে আব্দুল কালাম আধুনিক মালয়েশিয়ার রূপকার তুন . মাহাথির মোহাম্মদ-এর মতো গুনীজনদের আগমণ প্রমাণ করে ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ গুনীজনদেরকে কদর করতে জানে ডিসেম্বর ২০১৬ সালে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট নামে দেশের প্রথম স্যাটেলাইট উৎক্ষেপন করার মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার পথে আরো এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ তিনি ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরা আইনজীবি হয়ে দেশ মানুষের কল্যাণে কাজ করবে

বিশেষ অতিথি অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান ভূঁইয়া বলেন, বাংলাদেশের দেশবরেণ্য ব্যক্তিরা আইন অঙ্গন থেকে এসেছেন আমাদের ছাত্রদের মধ্য থেকেই ভবিষ্যতে দেশের প্রেসিডেন্ট-প্রধানমন্ত্রী হবে

অনুষ্ঠান শেষে আমন্ত্রিত অতিথিদের ক্রেস্ট প্রদান করা হয় আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মোহাম্মদ মনির হোসেন অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকল আমন্ত্রিত অতিথিদের আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানান অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ছাত্র-ছাত্রীরা

বিশ্ব সমাজকর্ম দিবসে প্রধান অতিথি ড. আরিফাতুল কিবরিয়া “একটি স্তিমিত সমাজকে জাগ্রত করার জন্য একজন সমাজকর্মীর দায়িত্ব অপরিসীম”

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর সমাজকর্ম বিভাগের উদ্যোগে বিশ্ব সমাজকর্ম দিবস পালন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি স্কুল অব লিবারেল আর্টস অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্সেস-এর ডীন সমাজকর্ম বিভাগের বিভাগীয় প্রধান . আরিফাতুল কিবরিয়া বলেন, একটি স্তিমিত সমাজকে জাগ্রত করার জন্য একজন সমাজকর্মীর দায়িত্ব অপরিসীম সমাজকর্মী একটি জাতি বা গোত্রকে নিয়ে কাজ করে যেখানে বসবাসরত সকল মানুষই সামাজিক সুযোগ-সুবিধা নিয়ে বেঁচে থাকতে পারে আর তাইতো এরা পথ দেখিয়ে দেন সকল সুবিধাবঞ্চিত মানুষকে সমাজকে যদি প্রগতির দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হয় তাহলে উন্নয়নমূলক কাজের পাশাপাশি সামাজিক সংহতি, শান্তি-শৃঙ্খলা অপরিহার্য যার মাধ্যমে একটি সমাজ অথবা একটি জাতি দন্ডায়মান থাকবে সমাজকর্ম আমাদের দেশে এখনো পেশাগত স্বীকৃতি না পেলেও এর ব্যাপক চাহিদা পরিলক্ষিত হয় তাই আমাদের আহ্বান থাকবে যাতে করে এর পেশাগত স্বীকৃতি দিয়ে যথার্থ মূল্যায়ন করা হয় তিনি আরও বলেন, আগামী দিনের সমাজকর্মীরা তাদের সৃজনশীলতার মাধ্যমে নতুন কর্মকৌশল অবলম্বন করে সমাজে উদ্ভূত সমস্যার সমাধান করে দ্রুততার সাথে এগিয়ে যাবে বলেই আমরা আশাবাদী

অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রধান আলোচক ড. আরিফাতুল কিবরিয়া কেক কেটে বিশ্ব সমাজকর্ম দিবস-এর উদ্বোধন করেন। সমাজকর্ম বিভাগের প্রভাষক সিলভিয়া খৃষ্টীনা গমেজ-এর সভাপতিত্বেপরিপূর্ণ সমাজগঠনে সমাজ কর্মীদের ভূমিকাপ্রতিপাদ্য বিষয়ে একটি সেমিনারের আয়োজন করা হয় অনুষ্ঠানটি ৩০ মার্চ ২০১৬ তারিখ, দুপুর ১২টায় ইউআইটিএস বারিধারা ক্যাম্পাসের মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়

সেমিনারে বিশেষ অতিথি সমাজকর্ম বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জাকিয়া সুলতানা বলেন, আমাদের প্রয়োজনে সমাজকর্ম যুগোপযোগী সমাধান দিয়ে আসছে একটি সমাজে সম্মান মর্যাদার সাথে টিকে থাকা হল খুবই জরুরি যার শিক্ষা আমরা সর্বদা এখান থেকে পেয়ে থাকি তাই এটিকে আশাব্যঞ্জক বিজ্ঞান বলা যায় কারণ এটি ভারসাম্যপূর্ণ জীবনযাত্রা গঠনে সমাজকর্মীরা বিশ্বকে নেতৃত্ব দিচ্ছে, যা আমাদের আশার সঞ্চার করে

 

সভাপতির বক্তব্যে সিলভিয়া খৃষ্টীনা গমেজ বলেন, আমাদের দেশের সমাজকর্মীরা তুলনামূলক আজ অনেক পরিণত সমাজে সংগঠিত যে কোন সমস্যা সমাধানে তারা অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে অসহায়, দুর্দশাগ্রস্ত বাস্তুহারাদের পাশে দাঁড়িয়ে নতুন উন্নয়নমূলক কর্মসূচী পরিচালনা করে তাদের অসহায়ত্ব ঘুচিয়ে দিচ্ছেন এটি আমাদের সমাজে একটি নতুন দিগন্তের সূচনা তৈরি করছে আর ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে তিনি সেমিনারে উপস্থিত সকল-কে অভিনন্দন ধন্যবাদ জানান

 

 

ইউআইটিএস আইন বিভাগের উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন অনূষ্ঠানে আইনভিত্তিক প্রযুক্তির সদ্ব্যবহারের শিক্ষা দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিরাট ভূমিকা রাখছে - বিচারপতি ড. মোঃ আবু তারিক

মহান স্বাধীনতা জাতীয় দিবসে সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর আইন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং শিক্ষার্থীদের বিশেষ সম্মাননা প্রদান উপলক্ষে ইউ.এল.এস.সি. (ইউআইটিএসল স্টুডেন্টস ক্লাব) কর্তৃক আয়োজিত অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের মাননীয় বিচারপতি জনাব . মোঃ আবু তারিক বলেন, শিক্ষার্থীদের আইনভিত্তিক প্রযুক্তির সদ্ব্যবহারের শিক্ষা দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিরাট ভূমিকা রাখছে তিনি ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি বলেন, প্রযুক্তিভিত্তিক ধরণের বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চ শিক্ষার সুযোগ থাকার কারণে আমাদের শিক্ষার্থীরা বিদেশে যাওয়ার প্রয়োজনবোধ করছে না সকল ছাত্র-ছাত্রীরা শিক্ষাশেষে অবশ্যই দেশের সকল ক্ষেত্রে বিভিন্নভাবে অবদান রাখতে পারবে বাংলাদেশের মানুষেরা দেখতে চায় যে, সুশাসন আইন প্রয়োগের মাধ্যমে স্বাধীনতার উদ্দেশ্যগুলো বাস্তবায়ন হচ্ছে তিনি বলেন, স্বাধীনতার মাসে ইউআইটিএসল স্টুডেন্টস ক্লাবের ছাত্র-ছাত্রীরা স্বাধীনতা যুদ্ধের শহীদদের প্রতি সম্মান জানাতে ধরণের কর্মসূচি পালন করছে এবং অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারায় আমি গর্ববোধ করছি

গত ২৬ মার্চ ২০১৬ তারিখ, শনিবার বিকাল ০৩.০০টায় অনুষ্ঠানটি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব মোঃ মনির হোসেন-এর সভাপতিত্বে রহমানিয়া রুফটপ রেষ্টুরেন্ট কনভেনশন হল- (২৮//সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০) অনুষ্ঠিত হয় অনুষ্ঠানের শুরুতেই মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী সকল শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করার পর আইন বিভাগের স্টুডেন্টস ক্লাব কর্তৃক প্রকাশিত নিউজ লেটার-এর মোড়ক উন্মোচন করা হয়

অনুষ্ঠানে সম্মানিত বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ পিএইচপি পরিবারের মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান

অনষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সদস্য সচিব প্রফেসর . কে এম সাইফুল ইসলাম খান, ইউআইটিএস-এর উপ-উপাচার্য প্রফেসর . চৌধুরী এম জাকারিয়া, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল ঢাকা-এর মাননীয় রেজিস্ট্রার জনাব মোঃ শহীদুল আলম ঝিনুক, ইউআইটিএস-এর আইন বিভাগের উপদেষ্টা বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি জনাব মোঃ আব্দুল মান্নান ভূইয়া এবং ইউআইটিএস রাজশাহী ক্যাম্পাসের কো-অর্ডিনেটর এডভোকেট মোঃ আরমান আলী

সম্মানিত বিশেষ অতিথি আলহাজ সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, “এই বাংলা শুধু সোনার বাংলা নয়, এই বাংলাকে হিরার বাংলায় পরিণত করতে হবে আমরা আমাদের শিক্ষার্থীদের এই সোনার বাংলায় সোনার মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই এই জন্য ছাত্র-ছাত্রীরকে সক্ষম সৎ চরিত্রবান হতে হবে তিনি বলেন, বিদ্যার সাথে বিনয়, শিক্ষার সাথে দীক্ষা, কর্মের সাথে নিষ্ঠা, জীবনের সাথে দেশপ্রেম এবং মানবীয় গুণাবলীর সংমিশ্রণ ঘটাতে পারলে সত্যিকারের আদর্শবান মানুষ হওয়া যায় আমাদের সন্তানদের মধ্যে যে শক্তি লুকিয়ে আছে তা জাগিয়ে তুলতে হবে বড় হওয়া নির্ভর করে, তোমার প্রয়োজনের তুলনায় কতটুকু অতিরিক্ত কাজ করছো কাজের প্রতি মমত্ববোধ, ভালবাসা, আন্তরিকতা একাগ্রতা থাকলে তোমাদের জীবনে সফলতা আসবেই

বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবি সমিতির সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক জনাব মোঃ মোশফাকুর রহমান সবুজ ইউআইটিএসল স্টুডেন্টস ক্লাব-কে একলক্ষ টাকার একটি চেক প্রদান করেন আমন্ত্রিত অতিথিদেরকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয় এছাড়াও ইউআইটিএস-এর আইন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদেরকে বিশেষ সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়

সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারী ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ

 

 

ইউআইটিএস আন্তঃ বিভাগীয় স্বাধীনতা কাপ ক্রিকেট টুর্নামেনট-২০১৬ উদ্বোধন

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) আয়োজিত ‘‘ইউআইটিএস আন্তঃ বিভাগীয় স্বাধীনতা কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট-২০১৬’’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ২৪ মার্চ ২০১৬ ‍তারিখ, বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ থানার কাঞ্চন ভারতচন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।

ক্রিকেট টুর্নামেন্ট উদ্বোধন করেন গেমস‌্ পরিচালনা কমিটির কনভেনার স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন ও ইইই বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. মোঃ মিজানুর রহমান।

ক্রিকেট টুর্নামেন্টে মোট ১৬টি দলের অংশগ্রহণে ৮টি ম্যাচ কাঞ্চন ভারতচন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এবং ৭টি ম্যাচ শ্যামলী ক্লাব মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও প্রক্টর পলাশ চন্দ্র কর্মকার, ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও ডেপুটি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোঃ খোরশেদ আলী, ফার্মেসী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ মোফাজ্জল হোসেনসহ অন্যান্য শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ

 

মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় ইউআইটিএস-এর ছাত্র শাকিল সরোয়ার নিহত

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর ইলেকট্রিকাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের স্প্রীং-২০১১ ব্যাচের ছাত্র শাকিল সরোয়ার গত ১৭ মার্চ ২০১৬ তারিখে ঢাকার বারিধারা, ভাটারায় এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় নিহত হন তার পিতার নাম মঞ্জুর আলম পারভেজ মাতার নাম মোর্তুজা বেগম তাদের গ্রামের বাড়ি মিয়া খান নগর, সাউথ বাকলিয়া, চট্টগ্রাম

 

তার অকাল মৃত্যুতে ইউআইটিএস পরিবার গভীরভাবে শোকাহত আমরা মরহুমের রূহের মাগফিরাত কামনা করি তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানাচ্ছি

 

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে ইউআইটিএস-এর শ্রদ্ধা

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৯৭তম জন্মদিন জাতীয় শিশু দিবস- সকাল ৯টায় ধানমন্ডি ৩২ সড়কে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি যাদুঘরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর মাননীয় উপ-উপাচার্য . প্রফেসর চৌধুরী এম জাকারিয়া

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ কামরুল হাসান, বিজনেস স্টাডিজ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মোঃ নাজমুল হাসান, ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডেপুটি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোঃ খোরশেদ আলীসহ ইউআইটিএস-এর শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ

 

ইউআইটিএস-এ ‘‘স্ট্রেস মেনেজমেন্ট অ্যান্ড সাকসেস ইন স্টুডেন্ট অ্যান্ড টিচার্স লাইফ’’ বিষয়ক একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর বারিধারা প্রধান ক্যাম্পাস মিলনায়তনে ১৬ মার্চ ২০১৬ বুধবার, বিকাল :৩০টায় কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ‘‘স্ট্রেস মেনেজমেন্ট অ্যান্ড সাকসেস ইন স্টুডেন্ট অ্যান্ড টিচার্স লাইফ’’ বিষয়ক একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয় সেমিনারে আলোচনা করেন কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের অর্গানিয়ার কেন্দ্রীয় আলোচক ইঞ্জিনিয়ার প্রাণজিৎ লাল

 

সময় উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড ট্রাস্টিজ-এর সদস্য সচিব অধ্যাপক . কে এম সাইফুল ইসলাম খান, উপ-উপাচার্য প্রফেসর . চৌধুরী এম জাকারিয়া, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ কামরুল হাসান, রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান, ইউআইটিএস-এর রাজশাহী ক্যাম্পাসের কো-অর্ডিনেটর অ্যাডভোকেট আরমান আলী, শিক্ষক-শিক্ষিকা কর্মকর্তাগণ

 

ইউআইটিএস-এর সমাজকর্ম বিভাগে সাংস্কৃতিক ‍সন্ধ্যা

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-সমাজকর্ম বিভাগেউদ্যোগে শনিবার (১২ মার্চ ২০১৬) বিকাল ৪টায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বিশ্ববিদ্যালয় মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়দেয়ালিকা উন্মোচনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুরু করেন প্রধান অতিথি ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সদস্য সচিব অধ্যাপক . কে এম সাইফুল ইসলাম খান অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমাজকর্ম বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মিসেস জাকিয়া সুলতানা

স্কুল অব লিবারাল আর্টস অ্যান্ড সোস্যাল সায়েন্স-এর ডিন ও সমাজকর্ম বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. আরিফাতুল কিবরিয়া-এর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সদস্য সচিব অধ্যাপক . কে এম সাইফুল ইসলাম খান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া ও কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী

প্রধান অতিথি অধ্যাপক . কে এম সাইফুল ইসলাম খান বলেন, নিয়মিত পাঠক্রমের পাশাপাশি সামাজিক-সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড, খেলাধূলা, ডিবেটিং ও শিক্ষাসফর –এসব কর্মকান্ডের সাথে জড়িত থাকলে ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের মেধা-মনন ও প্রতিভার বিকাশ ঘটাতে পারে এবং তারা এ প্রতিভাকে বিশ্ববিদ্যালয় ও সমাজে মেলে ধরতে পারে।তিনি  শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, শিক্ষা-সংস্কৃতি, রাজনীতি ও জীবনজগত সম্পর্কে সম্যক ধারণা অর্জন করতে এবং একজন পূর্ণাঙ্গ মানুষ হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে হলে এধরণের নিয়মিত পাঠক্রম বহির্ভূত কর্মকান্ডের একান্ত প্রয়োজন।

বিশেষ অতিথি প্রফেসর ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া বলেন, সমাজে সবচেয়ে যোগ্য নাগরিক হলো সংস্কৃতিবান লোক আর সেজন্য এ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আমাদের ছাত্র-ছাত্রীদের যোগ্যতায় একধাপ এগিয়ে দিবে। কারণ সংস্কৃতি মানুষকে ভাল-মন্দ, দোষ-গুন বিচার করা শেখায়।

বিশেষ অতিথি অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী বলেন, সংস্কৃতির বিকাশ হয় মানুষের কল্যাণ থেকে। মানুষের আচরণের যে পরিশীলিত রূপ, যে সৌন্দর্যের দিক, যে আকর্ষণীয় দিক –তাতেই প্রষ্ফুটিত হয় একটি সমাজ ও রাষ্ট্রীয় সংস্কৃতি। তাই বলা হয়ে থাকে জ্ঞান যদি হীরকখন্ডের ওজন হয়, তাহলে সংস্কৃতি হলো হীরকখন্ডের জ্যোতি। আমাদের ছাত্র-ছাত্রীদের ক্রিয়া-কর্মে সেই জ্যোতির প্রকাশ ঘটবে –সেটিই আমার আজকের এসময়ের প্রত্যাশা।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মাবেয়া রহমান অনন্তা, সাইদুর রহমান, মোঃ সিফাতুল্লাহ, মীর নাইম, টিশা বড়ুয়া, সারমিন আকতার শিলা, মরিয়ম সুলতানা, আলিয়া ফেরদৌসি স্বর্ণা, আলমগীর হোসেন, সানজিদা আক্তার, লিমা আক্তার ও সাদিয়া আফরিনসহ অন্যান্যদের অংশগ্রহণে গান, নৃত্য, কবিতা আবৃত্তি, র‌্যাম্প শো, ও ‘ইভটিজিং’ নামক নাটক পরিবেশিত হয়

এসময় ইউআইটিএস-এর রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ কামরুল হাসান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) ও স্কুল অব বিজনেস-এর ডিন অধ্যাপক আ ন ম শরীফইউআইটিএস রিসার্চ সেন্টার-এর পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান,ইউআইটিএস রাজশাহী ক্যাম্পাসের কো-অর্ডিনেটর অ্যাডভোকেট আরমান আলী এবং শিক্ষক-শিক্ষিকা, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন

সমাজকর্ম বিভাগের শিক্ষার্থী মাবেয়া রহমান অনন্তা ও সাইদুর রহমান-এর সাবলীল সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানটি প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে।

ডিজিটাল ইনোভেশন ফর উইমেন-২০১৬ প্রতিযোগিতায় প্রথম রানার্স আপ ইউআইটিএস-এর শিক্ষার্থী রুবাইয়া রওশন

আন্তর্জাতিক নারী দিবসকে লক্ষ্য করে উইমেন ইন ডিজিটাল এবং ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির যৌথ উদ্যোগে ‘‘ডিজিটাল ইনোভেশন ফর উইমেন-২০১৬’’ প্রতিযোগিতায় ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের স্প্রীং-১২ ব্যাচের শিক্ষার্থী রুবাইয়া রওশন প্রথম রানার্স আপ হিসেবে পুরস্কৃত হন

দেশের নারীদের প্রযুক্তি ব্যবসায় আগ্রহী করে তুলতে ৮ মার্চ ২০১৬ তারিখ, মঙ্গলবার ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি মিলনায়তনে এই অনুষ্ঠানের য়োজন করা হয়

উল্লেখ্য, গত ২৮ জানুয়ারি থেকে ডিজিটাল ইনোভেশন ফর উইমেন ২০১৬ শীর্ষক প্রতিযোগিতা শুরু হয়। এতে ৪৯টি প্রকল্প নিয়ে সারা দেশের ২৪৮ জন নারী শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। বিভিন্ন পর্যায়ে বিচারের মাধ্যমে শীর্ষ তিন উদ্ভাবনকে পুরস্কৃত করা হয়। এতে এয়ার কিড প্রকল্প নিয়ে ইউআইটিএস-এর শিক্ষার্থী রুবাইয়া রওশন দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন।

 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সড়ক, পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, এমপি বিশেষ অতিথি ছিলেন বেসিস সভাপতি শামীম আহসান, বাংলাদেশ উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্টির সভাপতি সেলিমা আহমেদ, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. ইয়াসমিন হক, বাংলাদেশ ব্যাংক ও বিআইবিএমের এসএমই ফ্যাকাল্টি কনসালট্যান্ট সুকোমল সিনহা চৌধুরী এবং বিডিজবসের প্রধান নির্বাহী ফাহিম মাশরুর। সভাপতিত্ব করেন ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ভাইস চ্যান্সেলর ড. রিজওয়ান খান

ইউআইটিএস-এ ইনডোর গেমসের উদ্বোধন

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর বারিধারা প্রধান ক্যাম্পাসে ১০ মার্চ ২০১৬ তারিখ, বৃহস্পতিবার সপ্তাহব্যাপি শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহণমূলক ‘‘ইন্টার ডিপার্টমেন্ট ইনডোর গেমস্-২০১৬’’-এর উদ্বোধন হয়। গেমসের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠদানের পাশাপাশি নিয়মিত পাঠক্রম বহির্ভূত কর্মকান্ড চলতে থাকবে। কারণ নিজের শরীর-মন সব ঠিক রাখার জন্য এবং নিজেকে যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে এই সব ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানের একান্ত প্রয়োজন। তিনি আরো বলেন, এ ধরনরে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে সৌর্হাদ্য, সম্প্রীতি বৃদ্ধি করবে।

প্রতিযোগিতায় টেবিল টেনিস, ক্যারাম, দাবা ও লুডু -এ চারটি ইভেন্টের আয়োজন করা হয়েছে। গেমস্ পরিচালনার দায়িত্বে থাকবেন গেমস‌্ পরিচালনা কমিটির কনভেনার স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন ও ইইই বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. মোঃ মিজানুর রহমান, ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও প্রক্টর পলাশ চন্দ্র কর্মকার, ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও ডেপুটি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোঃ খোরশেদ আলী এবং বিবিএ বিভাগের সহকারী অধ্যাপিকা মিসেস ফারহানা রহমান (সুমি)।

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও ডেপুটি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোঃ খোরশেদ আলী, ইউআইটিএস রাজশাহী ক্যাম্পাসের কো-অর্ডিনেটর অ্যাডভোকেট আরমান আলী, শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।

গণচীনের এমএসডব্লিউ সম্মেলন ও ল্যাম উ পুরস্কার অনুষ্ঠানে ইউআইটিএস-এর উপাচার্য ড. মুহাম্মদ সামাদ আমন্ত্রিত

 

গণচীনের শিক্ষা মন্ত্রণালয়, পিকিং ইউনিভার্সিটি এবং চায়না এসোসিয়েশন অব সোশ্যাল ওয়ার্ক এডুকেশন-এর আয়োজনে আগামী ১১ ১২ মার্চ বেইজিং-এর পিকিং ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠেয়অষ্টম এমএসডব্লিউ আন্তর্জাতিক সম্মেলন ল্যাম পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে . মুহাম্মদ সামাদ আমন্ত্রিত হয়েছেন দুদিনব্যাপী এই সম্মেলন পুরস্কার প্রদান উপলক্ষে আয়োজিতশিশু, যুব পরিবারের রূপান্তর এবং সমাজকর্ম শিক্ষার চ্যালেঞ্জসমূহ শীর্ষক আন্তর্জাতিক ওয়ার্কশপে সমাজকর্ম শিক্ষার একজন আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ এশিয়া-প্যাসিফিক এসোসিয়েশন অব সোশ্যাল ওয়ার্ক এডুকেশন-এর বোর্ড মেম্বার হিসেবে তিনিবাংলাদেশ আশিয়ান দেশসমূহের পরিবার ব্যবস্থার রূপান্তর এবং সমাজকর্ম শিক্ষার চ্যালেঞ্জ বিষয়ে প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন দেশের বিশিষ্ট কবি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাকর্মের অধ্যাপক . মুহাম্মদ সামাদ বর্তমানে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর উপাচার্য এবং জাতীয় কবিতা পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন

ইউআইটিএস-এর বার্ষিক বনভোজন-২০১৬ অনুষ্ঠিত

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর বার্ষিক বনভোজন-২০১৬ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ৬ মে ২০১৬ তারিখ, রবিবার মুন্সিগঞ্জ-এর লৌহজংয়ের ‘‘পদ্মা রিসোর্ট’’–এ বনভোজেন অনুষ্ঠিত হয়। বিভিন্ন ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মকর্তা -কর্মচারী রা দিনভর আনন্দ উপভোগ করে তারা খেলাসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

বনভোজনে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া, ইউআইটিএস রিসার্চ সেন্টার-এর পরিচালক প্রফেসর মোহাম্দ ফরিদ উদ্দিন খান রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ কামরুল হাসান।

 

 

 

২১শে ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ইউআইটিএস-এ মিলাদ মাহফিল

 

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখ বুধবার ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর বারিধারাস্থ স্থায়ী ক্যাম্পাস মসজিদে ভাষা শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ মাহফিল ও বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়।  যাঁদের রক্তের বিনিময়ে বাংলা ভাষা পৃথিবীর বুকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের পাশাপাশি ইউআইটিএস ও দেশের উত্তরোত্তর উন্নতি কামনা করে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) জনাব মোহাম্মদ কামরুল হাসান। উক্ত মাহফিলে আরো উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ, বিভিন্ন গণমাধ্যমের কর্মকর্তা, সাংবাদিক, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ ।

ইউআইটিএস-এ “ক্যাড সফট্ওয়ার অ্যান্ড প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট” বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ক্যাড/ক্যাম অ্যান্ড প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট, মাইক্রোসফট প্রজেক্ট এবং প্রাইমাভেরা বিষয়ের উপর একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব আহমেদ শিবলী নোমান-এর সভাপতিত্বে ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৬, সোমবার সন্ধ্যা ৫.৩০টায় বারিধারা প্রধান ক্যাম্পাসের হলরুমে উক্ত সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়।

সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর মাননীয় সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান এবং অতিথিবক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ক্যাড সেন্টার ট্রেনিং সার্ভিসেস প্রাইভেট লিমিটেডের সিনিয়র ম্যানেজার (এমসিএডিডি) জনাব সুনীল টংগড়িয়া। প্রধান অতিথি ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান বলেন, পৃথিবীতে আইটির ক্ষেত্রে ভারত অনেক এগিয়ে আছে এবং এ বিষয়ে ভারতের আইটি বিশেষজ্ঞদের অবদান রয়েছে। আমাদেরও এ ধরনের সেমিনারের আয়োজন করা একান্ত প্রয়োজন, তাহলে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও বিশ্বমানের আইটি ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে নিজেদের গড়ে তুলতে পারবে। স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিন ড. মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, এ ধরনের আইটি বিষয়ক সেমিনারে ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করলে তাদের জ্ঞান ও যোগ্যতা বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিন ড. মোঃ মিজানুর রহমান, ফ্রান্সিজি পার্টনার অব ক্যাড সেন্টার ইন্ডিয়া এবং পিপিএম ইন্ডিয়া-এর সিইও জনাব তৌফিকুল ইসলাম মিঠু ও বিভাগের অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষীকা ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ। এ সেমিনারটি স্পন্সর করে টিআইএম কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার ফ্রান্সিজি অব ক্যাড সেন্টার ইন্ডিয়া।

ভাষা শহীদদের প্রতি ইউআইটিএস-এর বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন

আজ যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাব-গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে সারাবিশ্বে পালিত হয় মহান শহীদ দিবস ও  আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। একুশের প্রথম প্রহরে রাজধানী ঢাকায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদিতে ভাষা শহীদদের প্রতি ফুল দিয়ে বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর উপ-উপাচার্য ড. প্রফেসর চৌধুরী এম জাকারিয়া, নর্থ ওয়েস্টার্ন আইটি ভিলেজ লিঃ, রাজশাহী-এর পরিচালক মিসেস শরিফা জাকারিয়া, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ কামরুল হাসান, বিবিএ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব মোঃ নাজমুল হাসানসহ ইউআইটিএস-এর শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ। ভোরে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের বারিধারাস্থ প্রধান ক্যাম্পাস ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত উত্তোলন করা হয়।

ইউআইটিএস-এ পুনর্মিলন ও বসন্ত উৎসব ১৪২২ উদযাপিত

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর ইংরেজী বিভাগের উদ্যোগে ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখ শনিবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মিলনায়তনে গেট-টুগেদার ও বসন্ত উৎসব ১৪২২ উদযাপিত হয়েছে।

ইংরেজী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সৈয়দা আফসানা ফেরদৌসি-এর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সদস্য সচিব ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া ও নর্দার্ন মেডিকেল কলেজের চেয়ারম্যান জনাব তাসকিন আহমেদ।

ঋতুরাজ বসন্তকে স্বাগত জানিয়ে প্রধান অতিথি বলেন, এ ধরণের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগেরই আয়োজন করা উচিত।


পরে গেট-টুগেদারের অংশ হিসেবে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে গান, নৃত্য, আবৃত্তি ও কৌতুক পরিবেশিত হয়।

 

এ সময় ইউআইটিএস-এর রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ কামরুল হাসান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) ও স্কুল অব বিজনেস-এর ডিন অধ্যাপক আ ন ম শরীফ, স্কুল অব লিবারাল আর্টস অ্যান্ড সোস্যাল সায়েন্স-এর ডিন ও সমাজকর্ম বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. আরিফাতুল কিবরিয়া, ইউআইটিএস রিসার্চ সেন্টার-এর পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন খান এবং শিক্ষক-শিক্ষিকা, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ইউআইটিএস-এ এইচআর এবং লিডারশীপ বিষয়ক এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

 

‘ইউথ কানেক্ট’ এর আয়োজনে গত ৮ই ফেব্রুয়ারি, সোমবার ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে এইচ.আর এবং লিডারশীপ বিষয়ক এক কর্মশালার আয়োজন করা হয়। কর্মশালায় কমিউনিকেশন, পাবলিক স্পীকিং এর গুরুত্ব সম্পর্কে চূড়ান্ত বর্ষের শিক্ষার্থীদের অবগত করা হয়। এই কর্মশালায় বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর প্রাক্তন শিক্ষার্থী জনাব শেখ আহমেদ জুহী এবং ইএমকে সেন্টারের প্রতিনিধি আহমেদ সাফা শোভন। এছাড়া উক্ত কর্মশালায় আরও উপস্থিত ছিলেন ড. চৌধুরী মো: জাকারিয়া উপ-উপাচার্য  ইউআইটিএস, মোহাম্মদ কামরুল হাসান রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) ইউআইটিএস, প্রফেসর আ.ন.ম. শরীফ ডিন স্কুল অব বিজনেস, মো: নাজমুল হাসান হেড ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ এবং অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ। উক্ত কর্মশালাটি আয়েশা বিনতে সফিউল্লাহ, স্টুডেন্ট এডভাইজার, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ এবং এ্যালামনাই এসোসিয়েশনের উদ্যোগে আয়োজিত এবং সহযোগিতায় ছিলেন ইএমকে সেন্টারের একটি প্রজেক্ট ‘ইউথ কানেক্ট’।

এই সেমিনারের উদ্দেশ্য ছিল চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্র-ছাত্রীদের ভবিষ্যৎ কর্মজীবনের জন্য কিভাবে নিজেদের তৈরি করতে হবে সে সম্পর্কে দিক নির্দেশনা প্রদান। কর্মশালায় যে সব বিষয় তুলে ধরা হয় তার মধ্যে- ইন্টারভিউ বোর্ডের সম্মুখীন হওয়া, সঠিকভাবে জীবন-বৃত্তান্ত লেখা, ইংরেজী ভাষার দক্ষতার গুরুত্ব, সঠিক শারীরিক ভাষার উন্নয়ন, সঠিক পরিচ্ছদ পরিধানের মাধ্যমে নিজেকে সুন্দরভাবে উপস্থাপনের প্রয়োজনীয়তা, ইন্টারভিউ বোর্ডের সম্মুখীন হওয়ার পূর্বে উক্ত প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে পরিপূর্ণভাবে অবগত হয়ে যাওয়া নেতৃত্বগুণ অর্জন করা, আতœ-সচেতনতা, সঠিক পেশা বেছে নেওয়ার জন্য মনমানসিকতা এবং যোগাযোগ স্থাপনসহ প্রভৃতি। বক্তারা আরো আলোকপাত করেন নতুন গণ প্রবেশযোগ্য দক্ষতা উন্নয়ন সম্পর্কে এবং প্রযুক্তি মাধ্যম ইএমকে সেন্টার ছাত্র-ছাত্রীদের একীভূত হতে সাহায্য করবে। কর্মশালাটিকে দুইটি ভাগে ভাগ করা হয়। প্রথম ভাগে বক্তারা উল্লেখ্য বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য দেন এবং দ্বিতীয় ভাগে ছিল প্রশ্নোত্তর পর্ব যেখানে বক্তারা ছাত্র-ছাত্রীদের প্রশ্নের উত্তর দেন।

উপ-উপাচার্য  ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত বর্ষের শিক্ষার্থীদেরকে তাদের কর্ম-পরিকল্পনার প্রতি গুরুত্ব প্রদান করেন। তিনি বলেন প্রত্যেকের জন্য কর্ম-পরিকল্পনা প্রনয়ণ করা অপরিহার্য। লক্ষ্যে পৌছাতে হলে নিজের মনের কথা জানতে হবে, যথাযথ দক্ষতাসমূহের উন্নয়ন করতে হবে এবং ধৈর্য, সাহস ও জ্ঞান নিয়ে লক্ষ্যে পৌছাতে হবে। ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া আরও বলেন, বর্তমান বিশ্ব তথ্য ও প্রযুক্তি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। যদি একজন স্নাতক ডিগ্রীধারী তথ্য-প্রযুক্তি জ্ঞান নির্ভর না হয়, তাহলে সে কোন প্রতিষ্ঠানে সফল হতে পারবে না। তিনি বলেন, ব্যর্থতা ছাড়া কেউ সফল হতে পারে না। প্রত্যেকে জানে কিভাবে বাধা বিপত্তিকে পরাস্ত করতে হয় এবং চ্যালেঞ্জকে মোকাবিলা করতে হয়। তিনি তার নিজের জীবনের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন এবং ছাত্র জীবন থেকে প্রগতিশীল প্রতিষ্ঠানে পৌছা অবধি বিশ্বের ব্যবসায়িক নেতাদের জীবনী পড়ার প্রতি গুরুত্বারোপ করেন। তিনি আরো বলেন, সম্প্রতি ইউআইটিএস শিক্ষার্থীদের ইংরেজী ভাষা উন্নয়নের লক্ষ্যে শূন্য ক্রেডিট কোর্স প্রবর্তন করেছে।

এই কর্মশালা ছাত্র-ছাত্রীদের অনুপ্রাণিত করেছে এবং বহুভাবে সমাদৃতও হয়েছে। ইউআইটিএস-এর ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ একই ধরনের কর্মশালা আয়োজনের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যেখানে ছাত্র-ছাত্রীরা পারস্পরিক যোগাযোগ ও জ্ঞান অর্জনের একটি মাধ্যম পাবে।

ইউআইটিএস-এর ইইই বিভাগের ছাত্রদের সাফল্য

 

ইউনিভার্সিটি  অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মোঃ সারোয়ার হোসেন, মোঃ আবু তুহিন, মোঃ সাজু মিয়া, মোঃ মোর্শেদ সরকার ও মোঃ মাহাদী হাসান অত্র বিভাগের প্রভাষক তন্ময় দাস-এর অধীনে ডিজাইন অ্যান্ড ইমপ্লিমেন্ট অব কিট ফর ল্যাব এক্সপেরিমেন্ট প্রজেক্টটি সম্পূর্ণ করেছে। তাদের তৈরি এই কিট দ্বারা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইলেক্ট্রনিক ল্যাবরেটরীতে একসাথে ১০টি এক্সপেরিমেন্ট করা যাবে। এখানে আলাদা কোন ইক্যুপমেন্ট প্রয়োজন হবে না। খুব অল্প সময়ে ছাত্র-ছাত্রীরা এই সিঙ্গেল কিট দ্বারা একসাথে অনেকগুলো ব্যবহারিক ক্লাস করতে পারবে। বর্তমানে এই কিটটি বাজারমূল্য প্রায় পাঁচ-ছয় লক্ষ টাকা।

গত ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখ, শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস মিলনায়তনে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া-এর  সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত নবীনবরণ বসন্ত ২০১৬ অনুষ্ঠানে এই অভাবনীয় সাফল্যের জন্য প্রধান অতিথি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হক,এমপি এবং বিশেষ অতিথি ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ ও পিএইচপি পরিবারের মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান-এর কাছ থেকে সনদ ও পাঁচ হাজার টাকার চেক গ্রহণ করেন ছাত্রদের পক্ষ থেকে মোঃ সারোয়ার হোসেন। সম্মানিত অতিথি মহোদয়গণ উক্ত ছাত্রদেরকে অভিনন্দন জানান।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব জনাব সরকার আবুল কালাম আজাদ, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের এডভোকেট ব্যারিষ্টার ড. মোঃ আশরাফুজ্জামান, ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সম্মানিত সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান, সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ ও পিএইচপি পরিবারের মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান-এর শিক্ষক জনাব মোঃ মোমতাজ উদ্দিন মোল্লা, ইউআইটিএস-এর স্কুল অব বিজনেস-এর ডিন অধ্যাপক আ ন ম শরীফ, কোষাধ্যক্ষ  অধ্যাপক ড. এস. আর. হিলালী এবং স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিন মোঃ মিজানুর রহমান-সহ আমন্ত্রিত অতিথি ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।

ইউআইটিএস -এর নবীনবরণ অনুষ্ঠানে মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী বাংলাদেশ এখন নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে আছে, কারো মুখাপেক্ষী নয়

 

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর উৎসবমুখর নবীনবরণ অনুষ্ঠানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মৎস্য প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হক বলেছেন, বাংলাদেশ এখন নিজের পায়ের উপর দাঁড়িয়ে আছে, কোন বিদেশি রাষ্ট্রের মুখাপেক্ষী নয় শিক্ষার সাথে বিধাতার আশীর্বাদ না হলে জীবনে বড় হওয়া যায় না বিশ্ববিদ্যালয় উচ্চ শিক্ষা পেশাদারী আধুনিক জ্ঞান অর্জনের কেন্দ্র তিনি আজ ইউআইটিএস এর বারিধারা ক্যাম্পাসে নবাগত ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি বলেন, আমাদের দেশ জাতিকে বিশ্বমানের উন্নত জাতিতে নিয়ে যাওয়ার জন্য পেশাদারী উচ্চ শিক্ষার কোন বিকল্প নাই তিনি আরও বলেন, আমাদের সরকার দেশকে আধুনিক বিশ্বে একটি বিশেষ সম্মানজনক অবস্থান উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার জন্য সর্বস্তরের শিক্ষার উপর অত্যন্ত গুরত্বারোপ করেছে জাতির এই লক্ষ্য অর্জনের পথে দেশের সরকারী বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলো চেষ্টা করে যাচ্ছে প্রধান অতিথি বলেন, আমি অত্যন্ত আনন্দিত যে, বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভিতর ইউআইটিএস বিভিন্ন পেশাদারী শিক্ষায় হাজার হাজার শিক্ষার্থীকে পর্যন্ত জাতির উন্নয়নের সৈনিক হিসেবে তৈরী করায় বিশেষ অবদান রাখতে সক্ষম হয়েছে

অদ্য ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখ, শনিবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক . চৌধুরী এম জাকারিয়া-এর সভাপতিত্বে বসন্তকালীন সেমিস্টারের নবীনবরণ বিশ্ববিদ্যালয়ের বারিধারার প্রধান ক্যাম্পাসের মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় নবীন ছাত্র-ছাত্রীদের ফুল দিয়ে বরণ করে স্বাগত ভাষণ দেন ইউআইটিএস-এর স্কুল অব বিজনেস-এর ডিন অধ্যাপক শরীফ

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৎস্য প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব মোহাম্মদ ছায়েদুল হক, এমপি বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ পিএইচপি পরিবারের মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব জনাব সরকার আবুল কালাম আজাদ এছাড়াও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের এডভোকেট ব্যারিষ্টার . মোঃ আশরাফুজ্জামান এবং ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সম্মানিত সদস্য সচিব অধ্যাপক . কে এম সাইফুল ইসলাম খান

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ ও পিএইচপি পরিবারের মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান-এর শিক্ষক জনাব মোঃ মোমতাজ উদ্দিন মোল্লা।

তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব জনাব সরকার আবুল কালাম আজাদ বলেন, আহসিটির অধীনে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারে বাংলাদেশ ২০২০ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের রাষ্ট্র হিসেবে পরিনত হবে

নবীনদের উদ্দেশ্য করে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পিএইচপি ফ্যামিলির মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন,“এই বাংলা শুধু সোনার বাংলা নয়, এই বাংলাকে হিরার বাংলায়ও পরিণত করতে হবেআমরা আমাদের শিক্ষার্থীদের এই সোনার বাংলায় সোনার মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই এই জন্য ছাত্র-ছাত্রীদেরকে সক্ষম সৎ চরিত্রবান হতে হবে

তিনি বলেন, নবাগতদের সবাইকে বিনয়ী হতে বলেন তিনি বলেন, বিদ্যার সাথে বিনয়, শিক্ষার সাথে দীক্ষা, কর্মের সাথে নিষ্ঠা, জীবনের সাথে দেশপ্রেম এবং মানবীয় গুণাবলীর সংমিশ্রণ ঘটাতে পারলে সত্যিকারের আদর্শবান মানুষ হওয়া যায় তিনি বলেন, উইম্যান পাওয়ারমেন্ট- বাংলাদেশ বিশ্বে জাগরণ সৃষ্টি করেছে যে বিদ্যা মানুষকে মানুষ না বানাবে আমরা সেই শিক্ষা চাইনা তিনি শিক্ষকদেরকে বলেন, আমাদের সন্তানদের মধ্যে যে শক্তি লুকিয়ে আছে তা জাগিয়ে তুলতে হবে তিনি আরো বলেন, বড় হওয়া নির্ভর করে, তোমার প্রয়োজনের তুলনায় কতটুকু বাড়তি কাজ করছ কাজের প্রতি তোমাদের একাগ্রতাই সফলতা আনবে কাংখিত স্বপ্ন পূরণের জন্য তোমাদের কাজ করে যেতে হবে তবে ভালো প্রতিষ্ঠান আর মানুষের সান্নিধ্য সফলতার পূর্ব শর্ত মেধার বীজ তোমাদের মনের ভিতর বপণ করতে হবে জাতি, সমাজ দেশকে বিশ্বের কাছে সম্মানিত করার গুরুদায়িত্ব বর্তমান প্রজন্মের তোমরা তরুণ সমাজ এদেশের ভবিষ্যৎ কর্ণধার


উল্লেখ্য, টপ-আপ আইটি অ্যান্ড আইটিইএস ফাউন্ডেশন স্কীলস্ ট্রেনিং বিটুইন প্রজেক্ট ইমপ্লিমেন্টেশন টীম, এলআইসিটি, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল, গভ. অব বাংলাদেশ (পিআইইউ) এবং ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) -এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়

অনুষ্ঠান শেষে আমন্ত্রিত অতিথিদের ক্রেস্ট প্রদান করা হয় কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক . এস. আর. হিলালী অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকল আমন্ত্রিত অতিথিদের আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানান অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী নবীন শিক্ষার্থীরা অনুষ্ঠানে সঞ্চালনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান

UITS B.Pharm Students visited Bridge Pharma


On 24th January 2016, a group of B.Pharm students took part in a one-day factory visit to Bridge Pharmaceuticals Limited,  Sarulia, Demra, Dhaka under the direction of Md. Mehedi Hasan, Lecturer, Department of Pharmacy, University of Information Technology & Sciences (UITS), Baridhara campus. Through the whole day students explored the warehouse, engineering department, production, quality control and microbiology department by the supervision of Mr. Azizul Hakim, Store officer; Mr. Arifur Rahman, Microbiologist; Mr. Forhad Sikder, Sr. Production officer Bridge Pharmaceuticals Limited.

Bridge Pharmaceuticals Limited is established with a vision to serve the people through quality medicine along with Quality Services at the minimum cost. At present, around 200 employees are working in this organization. They are highly skilled and serve this organization with their best effort. Employees are working in a very good environment. Corporate culture and values are helping them to develop continuously. They have solid dose, liquid syrup, powder, gel and injection manufacturing facilities.

Students spent the morning inside the warehouse where API, excipients and packaging are stored. In addition to that they observed the finished product store. Then the students continuously observed the bolus manufacturing, injection filling, liquid filling and packaging processes practically. After the lunch break, students explored the ETP, WFI and HVAC system. At the evening, a presentation on Bridge pharmaceuticals Limited was conducted by Mr. Arifur Rahman, Microbiologist with a session of ending speech. From the students, Biswajit Kumar expressed the gratefulness to the management of Bridge pharma for accepting them cordially. Another student named Ashiqur Rahman thanked the supervisors for fulfilling their dream. The production manager, Mr. Giash Uddin Khandoker said that they were very eager to disseminating practical knowledge by training the ‘to be pharmacist’. He also encouraged the students to study attentively with clear understanding what they are reading in the text books. “This factory visit gave the opportunity to observe and work with pharmacist and other factory personnel. UITS, Baridhara is committed to arrange practical experiences on how the medicines are made. That is why plans are under way for the future 3-day study tour in reputed pharmaceuticals manufacturing facilities.” says Mehedi Hasan, Lecturer, UITS.

ইউআইটিএস –এ ‘ইইই বিভাগে র‌্যাগ-ডে’ অনুষ্ঠিত

আনন্দ-উৎসবের মধ্য দিয়ে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের গ্রীষ্মকালীন সেমিস্টার-২০১২ ব্যাচের উদ্যোগে র‌্যাগ-ডে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানটি ১৫ জানুয়ারি ২০১৬, শুক্রবার বিকাল তিনটায় বারিধারার ইউআইটিএস প্রধান ক্যাম্পাসে উদযাপিত হয়। পুরো ক্যাম্পাস রঙ-বেরঙের বেলুন দিয়ে সজ্জিত করে বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিন ড. মোঃ মিজানুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইইই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জগৎ বন্ধু বড়য়া এবং সহকারী অধ্যাপক ও ছাত্র উপদেষ্টা মোহাম্মদ একরামুল কবির। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও প্রক্টর পলাশ চন্দ্র কর্মকার।

প্রধান অতিথি স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিন ড. মোঃ মিজানুর রহমান কেক কেটে র‌্যাগ-ডে অনুষ্ঠানটির শুভ উদ্বোধন করেন।

 

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের মিলনায়তনে মনোজ্ঞ সংগীতানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ সময় ব্যান্ড সংগীতের সুর-মূর্ছনায় নৃত্যের তালে তালে আনন্দ-উল্লাসে মেতে ওঠে ছাত্র-ছাত্রীরা। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।

 

ইউআইটিএস-এ মুক্ত প্রযুক্তির অপারেটিং সিস্টেম ও মুক্ত সফটওয়্যারের ব্যবহারিক প্রয়োগ বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

 

সফটওয়্যার চোর’-এই অপবাদ থেকে নিজের প্রাণের প্রিয় এই বাংলাদেশকে কালিমামুক্ত করতে এবং সফটওয়্যার প্রযুক্তিতে স্বনির্ভর মুক্তপ্রযুক্তি নির্ভর বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার, লিনাক্স উন্মুক্ত সোর্স ভিত্তিক সফটওয়্যারকে ছড়িয়ে দেবার প্রত্যয়ে মুক্ত প্রযুক্তি নির্ভর সফটওয়্যার, লিনাক্স এবং বিভিন্ন সেবাসমূহ নিয়ে নিয়মিত প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করে থাকে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ

ইউআইটিএস-এর কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ এবং এফওএসএস বাংলাদেশ-এর যৌথ উদ্যোগে মুক্ত প্রযুক্তির অপারেটিং সিস্টেম মুক্ত সফটওয়্যারের ব্যবহারিক প্রয়োগ বিষয়ক একটি প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয় দুই দিনব্যাপি শিক্ষক-কর্মকর্তাদেরকে অবহিতকরণমূলক এই প্রশিক্ষণ কর্মশালা গত ০৮ হতে ০৯ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে বিশ্ববিদ্যালয়ের মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়

উক্ত আয়োজনে সফটওয়্যার পাইরেসি থেকে মুক্ত হবার উপায়, মুক্ত সফটওয়্যারের ব্যবহারে শিক্ষার মানোন্নয়ন এবং ব্যয় সংকোচন সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনার পাশাপাশি আরো ছিল অংশগ্রহণকারী শিক্ষক-কর্মকর্তাদের সাথে সরাসরি মতামত বিনিময় আলোচনার সুযোগ প্রশিক্ষণ প্রদান করেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সফটওয়্যার প্রকৌশল বিভাগের খন্ডকালীন শিক্ষক এবং এফওএসএস বাংলাদেশ-এর মহাসচিব জনাব সাজেদুর রহিম জোয়ারদার

উল্লেখ্য যে, মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যার উদ্দেশ্য কম্পিউটার ব্যবহারকারীর অধিকার সংরক্ষণ করা এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন, মুক্ত সফটওয়্যার তৈরি করতে, ব্যবহার করতে এবং মানোন্নয়ন করতে উৎসাহ প্রদান করে

সমাপনী অনুষ্ঠানে অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য . চৌধুরী এম জাকারিয়া উপস্থিত সকলকে অভিনন্দন জানান

 

সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব রায়হানউদ্দীন আহমেদ এবং শিক্ষক-শিক্ষিকা কর্মকর্তাবৃন্দ

মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের চোখে মুক্তিযুদ্ধ

মহান বিজয় দিবসে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের চোখে মুক্তিযুদ্ধশীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য কমিশনার অধ্যাপিকা ড. খুরশীদা সাইদ এ কথা বলেন।

দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মহান বিজয় দিবস উদযাপন করেছে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)। আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ তথ্য কমিশন-এর তথ্য কমিশনার অধ্যাপিকা ড. খুরশীদা সাইদ এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান ও কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এস আর হিলালী।

তথ্য কমিশনার বলেন, ১৯৭১ সালে যে যুদ্ধ করেছি সেটা ছিল স্বাধীনতার যুদ্ধ, কিন্তু মুক্তির জন্য এখনও আমাদের সংগ্রাম অব্যাহত আছে। যদি আমরা এই যুদ্ধকে মূল্যবোধ দিয়ে ভাবি তবেই জাতির উন্নতি হবে। তিনি আরো বলেন, গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মতন্ত্র ও বাঙালী জাতীয়তাবাদ মুক্তিযুদ্ধের এই চারটি স্তম্ভকে ভালভাবে বিশ্লেষণ করলে গোটা জাতিকে বিশ্লেষণ করা সম্ভব।

প্রধান অতিথিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান অনুষ্ঠানের সভাপতি উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী এম. জাকারিয়া। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ কামরুল হাসান। এ দিবস উপলক্ষে ক্যাম্পাসে শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মচারীদের মধ্যে বিভিন্ন ইভেন্টে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা  হয় এবং বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

সভাপতি অধ্যাপক ড. চৌধুরী এম. জাকারিয়া মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন ও আত্মার মাগফেরাত কামনা করে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করেন।

এর আগে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের বারিধারাস্থ প্রধান ক্যাম্পাস ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয় এবং জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অপর্ণের মাধ্যমে শহীদদের প্রতি সম্মান জানান ইউআইটিএস-এর উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী এম. জাকারিয়া, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ কামরুল হাসানসহ  ইউআইটিএস-এর শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

বিনম্র শ্রদ্ধায় শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন করেছে ইউআইটিএস

 

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসপালন করেছ ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী এবং কর্মচারীরা

১৪ ডিসেম্বর সোমবার সকাল :৩০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য সচিব অধ্যাপক . কে এম সাইফুল ইসলাম খান, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক . চৌধুরী এম. জাকারিয়া, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ মিরপুরের বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন

 

এর আগে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বিশ্ববিদ্যালয় ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত উত্তোলন করা হয় অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশ্ববিদ্যালয়ের বারিধারার স্থায়ী ক্যাম্পাস মসজিদে বিশেষ দোয়া প্রার্থনার আয়োজন করে ইউআইটিএস

ইউআইটিএস-এ ‘বিশ্ব টয়লেট দিবস’ উপলক্ষে একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত

 

বিশ্ব টয়লেট দিবস উপলক্ষে স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন স্থাপন, রক্ষণাবেক্ষন এবং যথাযথ ব্যবহারের গুরুত্ব বিষয়ে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর প্রধান ক্যাম্পাসে একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উদ্যোগে টয়লেট ডেভলপমেন্ট: সেফটি অ্যান্ড সেনিটেশন পারস্পেক্টিভশীর্ষক সেমিনারটি ২০ নভেম্বর ২০১৫ শুক্রবার বিকাল :৩০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়।

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ওর্য়াল্ড টয়লেট অর্গানাইজেশন-এর সদস্য পিডব্লিউডি অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী জনাব সৈয়দ আজিজুল হক, পি.ইং এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর উপ-উপাচার্য অধ্যাপক . চৌধুরী এম. জাকারিয়া।

সেমিনারে উপস্থিত বক্তাগণ বলেন, অপরিচ্ছন্ন অভ্যাস জীবন যাপনই মূলত: রোগ বিস্তারের জন্য দায়ী। শুধুমাত্র পুষ্টিকর খাদ্য, ঔষধপত্র এবং সুচিকিৎসার অভাবে অকালমৃত্যু, ভগ্নস্বাস্থ্য এবং রোগের জন্য দায়ী নয় বরং অধিকাংশ ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতনতা সাধারণ জ্ঞানের অভাবই এর একটি মূখ্য কারণ। সেফটি এবং সেনিটেশনকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন জীবন-যাপন করতে হলে স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট স্থাপন করা অপরিহার্য।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব আরিফুজ্জামান।

 

সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সিই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক . মোঃ মাহমুদুল হাসান এবং বিভাগের অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষিকা ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।

ইউআইটিএস-এ বিবিএ বিভাগের ‘র‍্যাগ ডে’ অনুষ্ঠিত

আনন্দমুখর পরিবেশে দিনব্যাপি ্যাগ ডেউদযাপন করল ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর বিবিএ বিভাগের গ্রীষ্মকালীন সেমিস্টার ২০১২-এর ১১তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। ২১ নভেম্বর শনিবার কেক কাটার মাধ্যমে ্যাগ-ডে শুভ উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সদস্য সচিব অধ্যাপক . কে এম সাইফুল ইসলাম খান। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক . চৌধুরী এম. জাকারিয়া।

শিক্ষার্থীরা সকালে টি-শার্ট গায়ে দিয়ে ক্যাম্পাসে শোভাযাত্রা বের করেন। রঙ ছিটিয়ে নিজেদের মধ্যে হৈ-হুল্লোড়ে মেতেছিলেন ছাত্র-ছাত্রীরা। ছাড়া সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা নৃত্য গান পরিবেশন করেন।

নান্দনিক সাজে সজ্জিত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ট্রেজারার অধ্যাপক . এস আর হিলালী , স্কুল অব বিজনেস-এর ডিন অধ্যাপক . শরীফ, বিবিএ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব মোঃ নাজমুল হাসান এবং অন্যান্য শিক্ষক ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।

 

ইউআইটিএস -এ‘সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে র‍্যাগ-ডে’ অনুষ্ঠিত

নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শরৎকালীন সেমিস্টার-২০১১-এর ৬তম ব্যাচের আয়োজনে ্যাগ-ডে অনুষ্ঠিত হয় অনুষ্ঠানটি গত ১৯ অক্টোবর ২০১৫, সোমবার দুপুর .০০টায় বারিধারার ইউআইটিএস প্রধান ক্যাম্পাসে উদযাপিত হয় পুরো ডিপার্টমেন্ট নান্দনিক সাজে সজ্জিত করে বিভাগের শিক্ষার্থীরা কেক কেটে ্যাগ-ডে অনুষ্ঠানটি শুভ উদ্বোধন করেন সিই বিভাগের শিক্ষক জনাব মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান

নানা রঙে রঞ্জিত হয়ে ক্যাম্পাস এবং ক্যাম্পাসের আশে-পাশের এলাকায় বর্নাঢ্য আনন্দ মিছিল বের করে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্র-ছাত্রীরা সময়ে হৈ হুল্লোড়ে মেতে ওঠেন তারা

সময় আরো উপস্থিত ছিলেন উক্ত বিভাগের শিক্ষক জনাব মহিউদ্দিন আহমেদ, জনাব মোঃ নাসিম, মিস্ তাহমিনা জাহান নিপা, মোঃ মাহমুদ হাসান মামুন এবং অন্যান্য শিক্ষক ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ

 

ইউআইটিএস-এ জাঁকজমকপূর্ণ ‘জিরো ওয়ান ফেস্ট-২’-এর সমাপনী


ইউআইটিএস-জিরো ওয়ান ফেস্ট-, ২০১৫সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বোর্ড অব ট্রাস্টিজ পিএইচপি পরিবারের সম্মানিত চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান

জাঁকজমকপূর্ণভাবেজিরো ওয়ান ফেস্ট-, ২০১৫সমাপনী অনুষ্ঠানটি ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) বারিধারা প্রধান ক্যাম্পাস মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ইনফরমেশন টেকনোলজি বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত তিন দিনব্যাপি অনুষ্ঠানটি ১৪ নভেম্বর শনিবার বিকাল .৩০টায় অনুষ্ঠিত হয়

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ পিএইচপি ফ্যামিলির মাননীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সূফী মোহাম্মদ মিজানুরর হমান প্রধান অতিথি মিজানুর রহমান ছাত্রদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরা বড় স্বপ্ন দেখবে এবং কাংখিত স্বপ্ন বাস্তবায়িত করার জন্য তোমাদের কঠোর পরিশ্রম করতে হবে তিনি বলেন, “এই বাংলা সোনার বাংলা নয়, এই বাংলা হিরার বাংলায় পরিণত করতে হবে তোমাদেরকেইতিনি আরো বলেন, বড় হওয়া নির্ভর করে, তোমার প্রয়োজনের তুলনায় কতটুকু বাড়তি কাজ করছো কাজের প্রতি তোমাদের একাগ্রতাই সফলতা আনবে

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর উপ-উপাচার্য . চৌধুরী এম. জাকারিয়া এবং ট্রেজারার অধ্যাপক . এস. আর. হিলালী

বিশেষ অতিথি উপ-উপাচার্য . চৌধুরী এম. জাকারিয়া বলেন, আমাদের তরুণ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে যে জ্ঞানার্জন করেছে, তা প্রশংসার দাবি রাখে তিনি ধরনের শিক্ষামূলক আইটি নির্ভর প্রোগ্রাম আরো বেশি বেশি আয়োজন করার কথা উল্লেখ করেন

বিশেষ অতিথি অধ্যাপক . এস.আর. হিলালী বলেন, জীবনের সমৃদ্ধির জন্য নিজের জীবনকে আবিস্কার করতে হবে এই আবিস্কারের চাবিকাঠি নানানভাবে ব্যবহৃত হয়েছে, সেই সব উপকথা আমরা শুনেছি এবং এই আবিস্কারের জয়যাত্রাও মানুষের জীবনের উত্থানের সাথে সম্পৃক্ত আমরা বিজ্ঞানের জয়যাত্রার সাথে শরীক হবো

সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন . মোঃ মিজানুর রহমান তিনি উপস্থিত সকল অতিথি, শিক্ষক-শিক্ষিকা ছাত্র-ছাত্রীদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করেন

অনুষ্ঠানশেষে প্রতিযোগিতামূলক বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ী ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়

সময় আরো উপস্থিত ছিলেন স্কুল অব লিবারাল আর্টস অ্যান্ড সোস্যাল সায়েন্সেস-এর ডিন . সায়লা সালাহ্ উদ্দিন, সিএসই অ্যান্ড আইটি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব রায়হান উদ্দিন আহমেদ, কম্পিউটার ক্লাবের মেন্টর জনাব মোহাম্মদ নূরুজ্জামান ভূঁইয়া-সহ অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারী ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ

ইউআইটিএস-এ ‘জিরো ওয়ান ফেস্ট-২ -এর উদ্বোধন

তিন দিনব্যাপিজিরো ওয়ান ফেস্ট-, ২০১৫শুরু হল ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর মিলনায়তনে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ইনফরমেশন টেকনোলজি বিভাগের উদ্যোগে ১২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১১.০০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বারিধারা প্রধান ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠানটির শুভ উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন . এম. কায়কোবাদ উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক . মুহাম্মদ সামাদ

ফেস্টিভ্যালে নিরাপদ সড়ক, ক্যারিয়ার কাউন্সেলিং সিভি রাইটিং বিষয়ের উপর তিনটি সেমিনার, মুভি শো, অ্যালামনাই আড্ডা রক্তদান কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে এছাড়াও বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক ইভেন্ট রয়েছে, তার মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হলো প্রোগ্রামিং কনটেস্ট, টিটি গেমস্, ক্যারাম, লুডু, ফিফা, কড, এনএফএস, ফটোগ্রাফি, মোবাইল অ্যাপস্, প্রজেক্ট শো পোস্টার প্রেজেন্টেশন ইত্যাদি

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সদস্য সচিব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক . কে এম সাইফুল ইসলাম খান, ইউআইটিএস-এর উপ-উপাচার্য . চৌধুরী এম. জাকারিয়া ছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের প্রাক্তন তারকা ফুটবলার জনাব কায়সার হামিদ

প্রধান অতিথি অধ্যাপক . এম. কায়কোবাদ বলেন, ‘জিরো ওয়ান ফেস্টঅনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমাদের ছাত্র-ছাত্রীদের নেতৃত্বের গুনাবলী আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি পাবে তিনি আরো বলেন, আমাদের যে প্রাকৃতিক সম্পদ রয়েছে তার মাননির্ধারণ করতে হবে, সেজন্য আমাদের দক্ষ হতে হবে এবং দেশের প্রকৌশলীদের দক্ষ করে গড়ে তুলতে হবে তিনি উপস্থিত সকলকে দেশজ পণ্য ব্যবহারে উৎসাহিত করেন

বিশেষ অতিথি অধ্যাপক . কে এম সাইফুল ইসলাম খান বলেন, গ্রীণ টেকনোলজির মতো আধুনিক টেকনোলজি নির্ভর ইউআইটিএস-এর স্থায়ী ক্যাম্পাসের নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলছে আগামীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েটদের পিএইচপি ফ্যামিলির শিল্প প্রতিষ্ঠানসমূহে কর্মসংস্থানের জন্য অগ্রাধিকার দেয়া হবে আমরা আশা করি, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যেসব শিক্ষার্থীরা সিএসই অ্যান্ড আইটি বিষয়ে গ্র্যাজুয়েট হয়ে বের হবেন, তারা দেশের শ্রেষ্ঠমানের গ্র্যাজুয়েট হবেন

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় . চৌধুরী এম. জাকারিয়া শিক্ষার্থীদের বলেন, তোমাদের মেধা-মনন যদি কাজে লাগাতে পারি, তাহলে ইউআইটিএস স্বার্থক হবে যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়তে হলে ধরনের সেমিনার, শিম্পোজিয়াম খেলাধূলার আয়োজন করা খুবই দরকার

উপাচার্য . মুহাম্মদ সামাদ তথ্য-প্রযুক্তি বিজ্ঞানে আরো এগিয়ে যাওয়ার জন্য ছাত্র-ছাত্রীদের উপদেশ দেন তিনি উপস্থিত সকল অতিথি, শিক্ষক-শিক্ষিকা ছাত্র-ছাত্রীদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করেন

সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সিএসই অ্যান্ড আইটি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব রায়হান উদ্দিন আহমেদ, কম্পিউটার ক্লাবের মেন্টর জনাব মোহাম্মদ নূরুজ্জামান ভূঁইয়া-সহ অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষিকা ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ

 

সেমিনার -‘গ্রীন টেকনোলজি: ফিউচার প্রসপেক্টস ইন বাংলাদেশ’

‘গ্রীন টেকনোলজি: ফিউচার প্রসপেক্টস ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হল ইউআইটিএস-এর  প্রধান ক্যাম্পাসে। ১৭ অক্টোবর ২০১৫ শনিবার বিকাল ৪:৩০টায় এ সেমিনারের আয়োজন করে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ।

মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন এবং সম্পদ সাশ্রয়ে গ্রীন টেকনোলজির ব্যবহার অপরিহার্য। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে গ্রীন টেকনোলজি ব্যবহারে সচেতনতা বাড়াতে এ সেমিনারের আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ।

সেমিনারে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া প্রধান অতিথি এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর মাননীয় সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী এম জাকারিয়া বলেন, পরিবেশ বাঁচাতে গ্রীন টেকনোলজির ব্যবহার সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে হবে। পৃথিবীতে জলবায়ুর যে পরিবর্তন আসছে তাতে পরিবেশের বিপর্যয় ঘটবে। সেজন্য কার্বন ডাই-অক্সাইডের উৎপাদন বন্ধ করতে হবে। বাংলাদেশ একটি সবুজ-শ্যামল দেশ। এই জন্য পরিবেশের বিপর্যয় রক্ষার্থে এখন থেকেই আমাদের বিভিন্ন উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নিতে হবে।

বিশেষ অতিথি অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান বলেন, সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ জীব মানুষ সমান অধিকার, সমান সুন্দর পরিবেশে এবং স্বাভাবিক সুস্থ্য জীবন নিয়ে পৃথিবীতে বসবাস করবে। সে জায়গাটিতেই আমরা বারবার হোঁচট খাই, নানান ধরনের বাধার সম্মুখীন হই। আমাদের জ্ঞানগত সীমাবদ্ধতা, প্রযুক্তিগত সীমাবদ্ধতা সর্বোপরি কখনো কখনো বিশেষ বিশেষ শক্তি, পরাশক্তির অপকৌশল প্রভৃতি কারণে আমরা পরিবেশগতভাবে দূষণের শিকার হই। এই ধরনের প্রযুক্তি নির্ভর সেমিনার ইউআইটিএস-এর ছাত্র-ছাত্রীদের জ্ঞানের ভান্ডারকে আরো সমৃদ্ধ করবে।

গ্রীন টেকনোলজির উপর নির্মিত স্লাইড শোর মাধ্যমে অতিথি বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন আইডিওয়াইএলএলআইসি ডিজাইন-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আশরাফুল আলম রতন এবং পিডব্লিউডি’এর  অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী সৈয়দ আজিজুল হক।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইউআইটিএস-এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আফজাল আহমেদ।

অনষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন স্কুল অব লিবারাল আর্টস অ্যান্ড সোস্যাল সায়েন্সেস-এর ডিন ড. সায়লা সালাহ্ উদ্দিন, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব আরিফুজ্জামান এবং ইউআইটিএস-এর শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।

ইউআইটিএস-এ শরৎকালীন সেমিস্টার ২০১৫-এর নবীনবরণ অনুষ্ঠিত

আজ ১০ অক্টোবর ২০১৫ তারিখ শনিবার সকাল ১১টায় ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর মাননীয় উপাচার্য . মুহাম্মদ সামাদ-এর সভাপতিত্বে শরৎকালীন সেমিস্টার ২০১৫-এর নবীনবরণ বিশ্ববিদ্যালয়ের মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়

নবীন ছাত্র-ছাত্রীদের ফুল দিয়ে বরণ করে স্বাগত ভাষণ দেন মাননীয় উপ-উপাচার্য অধ্যাপক . চৌধুরী এম জাকারিয়া তিনি অনুষ্ঠানে আগত অতিথি নবীন শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন আন্তরিক ধন্যবাদ জানান

নবীনবরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর বোর্ড অব ট্রাস্টিজ পিএইচপি পরিবারের সম্মানিত চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সদস্য সচিব . কে এম সাইফুল ইসলাম খান বাংলাদেশের সাবেক নৌবাহিনীর প্রধান ভাইস এডমিরাল সারোয়ার জাহান নিজাম

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি আলহাজ্ব সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান নবাগতদের উদ্দেশ্যে বলেন, আলোকিত মানুষ ছাড়া আলোকিত মানুষ তৈরি করা যায় না বিদ্যার সাথে বিনয়, শিক্ষার সাথে দীক্ষা, কর্মের সাথে নিষ্ঠা, জীবনের সাথে দেশপ্রেম এবং মানবীয় গুণাবলীর সংমিশ্রণ ঘটাতে পারলে সত্যিকারের আদর্শবান মানুষ হওয়াযায় জাতি, সমাজ দেশকে বিশ্বের কাছে সম্মানিত করার গুরুদায়িত্ব তোমাদের

তিনি আরো বলেন, বড় হওয়া নির্ভর করে, তোমার প্রয়োজনের তুলনায় কতটুকু বাড়তি কাজ করছ কাজের প্রতি তোমাদের একাগ্রতাই সফলতা আনবে কাংখিত স্বপ্ন পূরণের জন্য তোমাদের কাজ করে যেতে হবে তবে ভালো প্রতিষ্ঠান আর মানুষের সান্নিধ্য সফলতার পূর্ব শর্ত মেধার বীজ তোমাদের মনের ভিতর বপণ করতে হবে

বিশেষ অতিথি বাংলাদেশের সাবেক নৌবাহিনীর প্রধান ভাইস এড মিরাল সারোয়ার জাহান নিজাম বলেন, আমাদের দেশকে উন্নতির শিখরে নিতে হলে প্রত্যেক স্তরে যার যা দায়িত্¦ পালন করতে হবে তিনি ছাত্রদেরকে বলেন, তোমরাই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে

বিশেষ অতিথি ইউআইটিএস বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সদস্য সচিব . কে এম সাইফুল ইসলাম খান শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমাদের সৌভাগ্য ইউআইটিএস-এর মতো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছো, এখানে উন্নত পরিবেশে শিক্ষা দান করা হয়

বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ . মোঃ সাইদুর রহমান হিলালী আগত সকল অতিথি নবাগত ছাত্র-ছাত্রীদের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়ার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন

নবীনবরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য . মুহাম্মদ সামাদ তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আজকের বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হলে তোমাদের ভাল চরিত্র, সততা-নিষ্ঠা আর একাগ্রতাই পৌছে দিবে জীবনের সর্বোচ্চ শিখরে উচ্চ শিক্ষা অর্জন শুধু অর্থ উপার্জনের জন্য নয় একজন ভাল মানুষ হওয়া

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ইউআইটিএস-এর রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ কামরুল হাসান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক . এম আব্দুসসাত্তার, আইন বিভাগের উপদেষ্টা