“১০ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে ইউজিসির সতর্কতা” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ।

on .

২০১৬ তারিখ, বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ইন্ডিপেনডেন্ট ২৪ আনলাইন পত্রিকার প্রথম পাতায় “১০ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে ইউজিসির সতর্কতা”- শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদে “সার্টিফিকেট বাণিজ্য, মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ এবং অবৈধ ক্যাম্পাস, নানা অভিযোগে বিভিন্ন সময়ে কয়েকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন। শিক্ষার্থীদের সতর্ক করতে ১০টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি তালিকা তৈরি করেছে ইউজিসি।” প্রকাশিত সেই তালিকার চতুর্থ নাম্বারে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর নাম উল্লেখ করা হয়েছে, যা দেখে আমরা বিস্মিত হয়েছি। ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছে। প্রকৃত সত্য এই যে, সার্টিফিকেট বাণিজ্য, মালিকানা দ্বন্দ্ব, অবৈধ ক্যাম্পাস ও সরকারের সাথে মামলা সংক্রান্ত বিষয়ের সাথে ইউআইটিএস এর কোন সম্পর্ক নেই। যেসব বিশ্ববিদ্যালয় এসব দোষে দূষিত তাদের নামের পাশে ইউআইটিএস এর নামের উল্লেখ কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। এ সংক্রান্ত যে কোন প্রমান ও জবাব দিতে ইউআইটিএস কর্তৃপক্ষ প্রস্তুত রয়েছে। কারন ইউআইটিএস বর্তমানে শতভাগ নকল মুক্ত একটি বিশ্ববিদ্যালয়, অতএব ইউআইটিএস এ সার্টিফিকেট বাণিজ্যের কোন সুযোগ নেই। ইউআইটিএস এ মালিকানা নিয়ে কোন দ্বন্দ নেই এবং অবৈধ ক্যাম্পাসের অভিযোগ সম্পূর্ণ অবান্তর।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ থেকে জানানো যাচ্ছে যে প্রকাশিত সংবাদটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। অত্যন্ত আস্থার সাথে জানানো যাচ্ছে যে ইউআইটিএস বিশ্ববিদ্যালয় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১০ এর আলোকে ইউজিসি নির্দেশনা মতে সার্বিকভাবে পরিচালিত হচ্ছে। এমতাবস্থায় এ ধরনের ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশ আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুন্ন করার প্রচেষ্টা হিসেবে প্রতীয়মান হয়।

সুতরাং, বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে এই সংবাদের প্রতি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীদেরকে এ ধরনের বিভ্রান্তিমূলক তথ্য যাচাইপূর্বক সকলকে সতর্ক থাকার জন্য আন্তরিকভাবে আহবান জানানো যাচ্ছে।

ধন্যবাদান্তে
রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত)
ইউআইটিএস, বারিধারা, ঢাকা।

Download from BIGTheme.net free full premium templates